kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আবদুল কাহহার আকন্দের সাক্ষ্য

‘তারেকের নেতৃত্বে হাওয়া ভবনের বৈঠকে হাসিনাকে হত্যার পরিকল্পনা হয়’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



‘তারেকের নেতৃত্বে হাওয়া ভবনের বৈঠকে হাসিনাকে হত্যার পরিকল্পনা হয়’

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে গ্রেনেড হামলা চালানোর দুই-এক দিন আগে বনানীর হাওয়া ভবনে এর পরিকল্পনা করা হয়। তারেক রহমানের নেতৃত্বে বিএনপি ও জামায়াতের কয়েকজন নেতা মুফতি হান্নানের সঙ্গে বৈঠক করে এ পরিকল্পনা চূড়ান্ত করেন।

গ্রেনেড হামলার ঘটনায় করা হত্যা ও বিস্ফোরকদ্রব্য আইনের দুই মামলায় দেওয়া সাক্ষ্যে সিআইডির বিশেষ সুপার আবদুল কাহহার আকন্দ এসব কথা বলেন।

আবদুল কাহহার আকন্দ মামলার শেষ তদন্ত কর্মকর্তা। গতকাল মঙ্গলবার তৃতীয় দিনের মতো সাক্ষ্য দেন তিনি। ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১-এর বিচারক শাহেদ নুরউদ্দিন তা লিপিবদ্ধ করেন। আগামী ১৭ ও ১৮ অক্টোবর তদন্ত কর্মকর্তা বাকি সাক্ষ্য দেবেন।  

সাক্ষ্যে আবদুল কাহহার আকন্দ বলেন, ‘হাওয়া ভবনের বৈঠকে তারেক রহমানের সঙ্গে তত্কালীন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুত্ফুজ্জামান বাবর, বিএনপি নেতা হারিছ চৌধুরী, সাবেক উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টু, জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ উপস্থিত ছিলেন। সিআইডির এই কর্মকর্তা ট্রাইব্যুনালকে বলেন, ‘হাওয়া ভবনে বৈঠকের আগে মুফতি হান্নান কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের তত্কালীন সংসদ সদস্য কায়কোবাদের মাধ্যমে তারেক রহমানের সঙ্গে পরিচিত হন। হাওয়া ভবনের বৈঠকের আগে মুফতি হান্নানসহ অন্য জঙ্গি নেতাদের সঙ্গে সাবেক উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টু তাঁর ধানমণ্ডির বাসায় কয়েকবার বৈঠক করেন। বৈঠকে শেখ হাসিনাকে হত্যার পরিকল্পনা হয়। এরও আগে মুফতি হান্নান ও মাওলানা আবদুস সালামসহ বেশ কিছু জঙ্গি নেতা মোহাম্মদপুরের একটি মাদ্রাসায় সভা করে শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগ নেতাদের হত্যার সিদ্ধান্ত নেয়।


মন্তব্য