kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


অতিরিক্ত পণ্য পরিবহন

জটিলতা নিরসনে কমিটি

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৫ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



চট্টগ্রাম-ঢাকা মহাসড়কে অতিরিক্ত পণ্যবাহী গাড়ি চলাচলের জটিলতা নিরসনে একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিটি করা হয়েছে। কমিটি আগামী ১৩ অক্টোবর প্রথম বৈঠক করবে।

বিদ্যমান সমস্যা খতিয়ে দেখে সেটা সমাধানে সুপারিশ জমা দেবে কমিটি। সুপারিশ না দেওয়া পর্যন্ত ধর্মঘট স্থগিত থাকবে এবং বর্তমানে সাড়ে ৪২ টন পর্যন্ত পণ্য পরিবহনের যে সাময়িক সুবিধা দেওয়া হয়েছে, সেটিও কার্যকর থাকবে।

গতকাল মঙ্গলবার ঢাকার রমনা রেস্টুরেন্টে এক বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান। এ ছাড়া তিন বন্দর চেয়ারম্যান, বন্দর ব্যবহারকারী সংগঠনগুলোর নেতারা এবং আন্দোলনকারী গাড়ি মালিক-শ্রমিক নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক থেকে বের হয়ে তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইএ পরিচালক আ ন ম সাইফুদ্দিন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বৈঠকে মহাসড়কের ওজন স্কেলের নানা বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। সেগুলো খতিয়ে দেখতে একটি উচ্চ পর্যায়ের একটি কমিটি করা হয়েছে। কমিটির প্রতিবেদন না পাওয়া পর্যন্ত ধর্মঘট স্থগিত থাকবে এবং বিদ্যমান নিয়ম কার্যকর থাকবে। ’

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে আহ্বায়ক করে গঠিত কমিটিতে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী, নৌপরিবহনমন্ত্রী ছাড়াও চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসন ও সিটি করপোরেশনের মেয়র, দেশের তিন বন্দর চেয়ারম্যান ও বন্দর ব্যবহারকারী সংগঠনগুলোর শীর্ষ নেতাদের সদস্য করা হয়েছে। এর বাইরে বিষয়টির কারিগরি দিক জানতে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের উপসচিবকে প্রধান করে একটি কমিটি করা হয়েছে। এই কমিটি প্রতিবেদন তৈরি করে ১৩ অক্টোবরের বৈঠকে বিষয়টি উপস্থাপন করবে।

জানতে চাইলে আন্দোলনকারী সংগঠন চট্টগ্রাম প্রাইম মুভার ট্রেইলর মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের যুগ্ম সদস্যসচিব হুমায়ুন কবির কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘গতকালের বৈঠকের সিদ্ধান্তের কারণে আমাদের ধর্মঘটও স্থগিত থাকবে। ফলে যান চলাচলে কোনো বাধা নেই। ’

উল্লেখ্য, চট্টগ্রাম-ঢাকা চার লেন মহাসড়কে জরিমানা ছাড়াই কম চাকায় বেশি পণ্য পরিবহনের দাবিতে গত ২৭ সেপ্টেম্বর হঠাৎ করেই ধর্মঘট ডাকে চট্টগ্রাম প্রাইম মুভার ট্রেইলর মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। পরে গত ৩০ সেপ্টেম্বর দুপুরে চট্টগ্রাম নগর পুলিশের কমিশনারের সঙ্গে বৈঠকের পর ৪ অক্টোবর পর্যন্ত ধর্মঘট স্থগিত করা হয়। গতকালের বৈঠক সামনে রেখেই আন্দোলনকারীর কর্মসূচি স্থগিত করে।


মন্তব্য