kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


উপদেষ্টার পদ ছাড়লেন বিএনপির তৈমূর আলম

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

৫ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টার পদ ছেড়েছেন নারায়ণগঞ্জের অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার। ইতিমধ্যে তিনি পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

তবে তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি পদে থাকতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

দলীয় সূত্র জানায়, বিএনপির নতুন কমিটিতে গত ৬ আগস্ট চেয়ারপারসনের ৭৩ উপদেষ্টার নাম প্রকাশ করা হয়। এতে উপদেষ্টা হিসেবে ৬৩ ক্রমিকে নাম ছিল তৈমূর আলম খন্দকারের। উপদেষ্টার পদপ্রাপ্তি উপলক্ষে নেতাকর্মীরা তাঁকে ফুল দিয়ে বিভিন্ন সময় শুভেচ্ছা জানিয়েছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তির প্যাডে তিনি নিজেও উপদেষ্টার পরিচয় ব্যবহার করছিলেন। আকস্মিক সোমবার রাতে দলের ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহানের হাতে পদত্যাগপত্র জমা দেন। তৈমূর আলমের ছোট ভাই নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক ও নাসিকের ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ পদত্যাগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। পদত্যাগপত্রে তিনি চেয়ারপারসনের উদ্দেশে লিখেছেন, ‘আপনার উপদেষ্টা করে আমায় সম্মানিত করেছেন, তার জন্য চিরকৃতজ্ঞ। আপনি আমায় যা দিয়েছেন, আমি পেয়েছি। কিন্তু নারায়ণগঞ্জ জেলার নেতাকর্মীরা, যারা নানা আন্দোলন সংগ্রামে, জেল-জুলুম সহ্য করে, দলকে ভালোবেসে রাজপথে আছে তাদের চাওয়া আমি যেন তাদের দায়িত্ব গ্রহণ করি। ’

তৈমূর আলম খন্দকার বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। একই সঙ্গে তিনি বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহআইনবিষয়ক সম্পাদক হিসেবে ছিলেন। নতুন কমিটিতে তাঁকে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা করা হলেও এবার ‘এক নেতার এক পদ’ নীতি অনুসরণের জন্য বিএনপি সিদ্ধান্ত নেয়। সে কারণে ইতিমধ্যে দলীয় মহাসচিবসহ অনেকেই জেলা পর্যায়ের নেতৃত্ব ত্যাগ করেছেন। এ ক্ষেত্রে বিপরীত সিদ্ধান্ত নিলেন তৈমূর খন্দকার।

পদত্যাগ বিষয়ে তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, ‘যাদের নিয়ে আন্দোলন সংগ্রাম করেছি, তাদের মতামতের গুরুত্ব দিতে চাই। আমার নেতাকর্মীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতেই পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছি। তবে বিষয়টি চূড়ান্ত করবেন দলীয় চেয়ারপারসন। ’


মন্তব্য