kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দক্ষিণ এশীয় টেলিযোগাযোগ সম্মেলন আজ ঢাকায় শুরু

বিশেষ প্রতিনিধি   

৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



দক্ষিণ এশীয় টেলিযোগাযোগ সম্মেলন আজ ঢাকায় শুরু

দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোর টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক কাউন্সিলের (এসএটিআরসি) তিন দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলন আজ মঙ্গলবার ঢাকায় শুরু হচ্ছে। সরকারের ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ও এশিয়া-প্যাসিফিক টেলিকমিউনিটি (এপিটি) যৌথভাবে এই সম্মেলনের আয়োজন করছে।

এটিকে ‘মিনি সার্ক সম্মেলন’ আখ্যায়িত করে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, এবার পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদে সার্ক শীর্ষ সম্মেলন নিয়ে অনিশ্চয়তার প্রেক্ষাপটে  বাংলাদেশে  এসএটিআরসির সম্মেলন একটি সাফল্য। এ  সম্মেলনে সার্কভুক্ত সব দেশের প্রতিনিধিই আসছেন।

প্রসঙ্গত, আগামী মাসে অনুষ্ঠিতব্য সার্ক শীর্ষ সম্মেলনে ভারত, ভুটান ও আফগানিস্তান যোগ দিচ্ছে না বলে ইতিমধ্যেই সার্কের বর্তমান সভাপতি দেশ নেপালকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।   বাংলাদেশও এ সম্মেলনে  যোগ দিচ্ছে না।

গতকাল সোমবার  বিটিআরসির সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংস্থাটির চেয়ারম্যান  ড. শাহজাহান মাহমুদ এসএটিআরসির ১৭তম আন্তর্জাতিক সম্মেলন সম্পর্কে বলেন, ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বর্তমান উত্তেজনাকর পরিস্থিতির কারণে বাংলাদেশ এ সম্মেলনের আয়োজন করতে পেরেছে। এটা অনেক বড় ব্যাপার।

ড. শাহজাহান জানান, এসএটিআরসি সম্মেলনে আয়োজক বাংলাদেশ এবং ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ভুটান, আফগানিস্তান, মালদ্বীপ, ইরানসহ দক্ষিণ এশিয়ার ৯টি  দেশের  টেলিযোগাযোগ ও তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক রেগুলেটরি সংস্থার প্রধান, টেলিকম অপারেটর, উদ্যোক্তা, সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার কর্মকর্তা ও টেলিকম ও তথ্যপ্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞের প্রায় ১০০ জন প্রতিনিধি অংশ নেবেন। তবে এ সম্মেলনে সার্কভুক্ত দেশ শ্রীলঙ্কার প্রতিনিধিত্বের বিষয়টি গতকাল পর্যন্ত অনিশ্চিত ছিল।

আজ সকালে রাজধানী ঢাকার লা মেরিডিয়ান হোটেলে এ সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে আইন বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক উপস্থিত থাকবেন। এ ছাড়া এই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি থাকবেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ শাহরিয়ার আলম। সম্মেলনে সভাপতিত্ব করবেন এসএটিআরসির বর্তমান চেয়ারম্যান ও ভারতের টেলিকম রেগুলেটরি অথরিটির চেয়ারম্যান আর এস শর্মা। এ ছাড়া এপিটি মহাসচিব মিজ অ্যারিওয়ান হাওরাংসি, বাংলাদেশের ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব ফয়জুর রহমান চৌধুরী এবং বিটিআরসির চেয়ারম্যান উপস্থিত থাকবেন।

তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠিতব্য এ সম্মেলনে থাকছে ১১টি সেশন ও ‘ইভাল্যুয়েশন অব রেগুলেটরি ফ্রেমওয়ার্ক ইন সাউথ এশিয়া অ্যান্ড এশিয়া প্যাসিফিক, দ্য রেগুলেটরি টুলস রিকুইয়ার্ড’ শীর্ষক একটি গোলটেবিল বৈঠক।

বিভিন্ন সেশনে ব্রডব্যান্ড নেটওয়ার্ক-এর গুণগত মান, ডিজিটাল আর্থিক অন্তর্ভুক্তি, তরঙ্গ নিয়ন্ত্রণ, ইন্টারনেট অব থিঙ্কস, পঞ্চম প্রজন্মের মোবাইল সেবা, ওভার দ্য টপ বা ওটিটি হুমকি, সাইবার নিরাপত্তা, এ ফোরামের সদস্য দেশগুলোর মধ্যে স্বল্পমূল্যে রোমিং সুবিধা এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে রেগুলেটরি ফ্রেমওয়ার্ক ও কর্মকৌশল নিয়ে আলোচনা হবে। নির্ধারণ করা হবে এ সংস্থার পরবর্তী অ্যাকশন প্ল্যান ও পরবর্তী সম্মেলেনের স্থান।

রোমিং সুবিধা সম্পর্কে বিটিআরসির চেয়ারম্যান সংবাদ সম্মেলনে বলেন, বাংলাদেশ থেকে ভারতে ফোন করতে হলে প্রতি মিনিটে ১২ টাকা ব্যয় হয়। এটি খুবই ব্যয়বহুল। বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে এ বিষয়ে সমঝোতা হলে কম খরচে টেলিফোন যোগাযোগ করা যাবে।

বিটিআরসির চেয়ারম্যান জানান, ভারতের সঙ্গে সমঝোতার ভিত্তিতে এর আগে গ্রামীণফোনের নেটওয়ার্কে ভারতের নেটওয়ার্ক ঢুকে পড়ায় সমস্যার সমাধান করা গেছে। এয়ারটেল বাংলাদেশেরও একই সমস্যা রয়েছে। এটাও সমাধানের চেষ্টা চলছে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বাংলাদশের পক্ষ থেকে এ সম্মেলনে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধনের সাফল্যের অভিজ্ঞতাও তুলে ধারা হবে। অনেক দেশেই এ ধরনের উদ্যোগ সফলতা পায়নি।

উল্লেখ্য, ইন্টারন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়ন (আইটিইউ) ও এশিয়া প্যাসিফিক টেলিকমিউনিটি (এপিটি)-এর উদ্যোগের অংশ হিসেবে ১৯৯৭ সালে দক্ষিণ এশিয়ার টলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থাগুলোর সমন্বয়ে এসএটিআরসির নামে এ ফোরাম গঠিত হয়। এর প্রথম সম্মেলন হয় ১৯৯৮ সালে কলম্বোতে। বাংলাদেশ এর আগে এ সংস্থার সম্মেলন আয়োজন করেছে তিনবার। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর টেলিযোগাযোগ ও আইসিটিবিষয়ক বিভিন্ন নীতিমালা, প্রবিধান, নিয়ন্ত্রণ কাঠামোসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা ও সমন্বয়ের লক্ষ্যে এ সংস্থা কাজ করে থাকে। এসংস্থার ১৬তম সম্মেলন ভারতে অনুষ্ঠিত হয়। সংস্থার নিয়ম অনুসারে সম্মেলনের আয়োজক দেশের টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থার প্রধান পরবর্তী কাউন্সিলের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। সে ক্ষেত্রে বিটিআরসির চেয়ারম্যান এবার এসএটিআরসির চেয়ারম্যান নিযুক্ত হবেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিটিআরসির ভাইস চেয়ারম্যান  ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আহসান হাবিব খান (অব.), কমিশনার মো. জহুরুল হক ও সালেহ্ আহমেদ হাকিম, সচিব মো. সরোয়ার আলম এবং  মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. এমদাদ উল বারীসহ বিটিআরসির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তরা।


মন্তব্য