kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


অতিরিক্ত সৃজনশীল প্রশ্ন

শিক্ষার্থীদের আন্দোলন অব্যাহত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



শিক্ষার্থীদের আন্দোলন অব্যাহত

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার অতিরিক্ত সৃজনশীল প্রশ্নের প্রতিবাদে গতকাল ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্রীরা শান্তিনগর মোড় অবরোধ করে। ছবি : কালের কণ্ঠ

সৃজনশীল অতিরিক্ত প্রশ্ন কমানোর দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন অব্যাহত রয়েছে। গতকাল রবিবার রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে মানববন্ধনসহ আন্দোলন কর্মসূচি পালন করেছে স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীরা।

রাজধানীর শান্তিনগর ও মিরপুর-১০ নম্বরে গতকাল মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে শিক্ষার্থীরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে এক সংবাদ সম্মেলনেও শিক্ষার্থীরা পরীক্ষার পুরনো পদ্ধতি রাখার দাবি জানিয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষার্থীরা জানায়, হঠাৎ করে সৃজনশীলে প্রশ্ন বাড়ানোয় শারীরিক ও মানসিক চাপ তৈরি হয়েছে। ছয়টি প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়েই যখন হিমশিম খেতে হয়, তখন আরেকটি প্রশ্ন বাড়ানো হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে রাজধানীর ঢাকা সিটি কলেজ, সরকারি বিজ্ঞান কলেজ, সরকারি বাঙলা কলেজ, ধানমণ্ডি আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর থেকে জানান, অতিরিক্ত সৃজনশীল প্রশ্ন বাতিলের দাবিতে চান্দনা চৌরাস্তায় মহাসড়ক অবরোধ করেছিল শিক্ষার্থীরা। গতকাল দুপুর সোয়া ১২টায় বেশ কয়েকটি কলেজের শিক্ষার্থীরা পৌঁছে মহাসড়ক অবরোধ করে মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করতে থাকে। এতে প্রায় এক ঘণ্টা যান চলাচল ব্যাহত হয়। পরে শিক্ষার্থীরা অবরোধ তুলে নেয়।

সিলেট অফিস জানিয়েছে, নতুন নিয়ম বাতিলের দাবিতে সিলেটে মানববন্ধন করেছে বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থীরা। গতকাল বিকেলে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে তারা মানববন্ধন করে। জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট কলেজ, স্কলার্স হোম, সিলেট কমার্স কলেজ, এমসি কলেজ, শাহজালাল সিটি কলেজ, মদন মোহন কলেজ, জালালাবাদ কলেজ, ক্লাসিক কলেজ, ইউনিভার্সাল কলেজ, সায়েন্স কলেজসহ বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থীরা এতে অংশ নেয়।

২০১৭ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় বহুনির্বাচনী থেকে ১০ নম্বর কমিয়ে সৃজনশীল প্রশ্নে তা বাড়ানো হয়েছে। ফলে সৃজনশীল অংশে এখন থেকে শিক্ষার্থীদের একটি প্রশ্নের উত্তর বেশি দিতে হবে। আগে দুই ঘণ্টা ২০ মিনিটে এই পরীক্ষা নেওয়া হলেও এখন তা করা হয়েছে আড়াই ঘণ্টা। আকস্মিক নতুন এ পদ্ধতি ঘোষণার বিরোধিতা করছে শিক্ষার্থীরা।


মন্তব্য