kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


‘২০২১ সালের মধ্যে দেশ শতভাগ স্যানিটেশনের আওতায় আসবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



রাজধানীর ভাসমান লোকজনকে প্রাধান্য দিয়ে স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশন ব্যবস্থা গড়ে তুলতে সরকার মহাপরিকল্পনা প্রণয়নের কাজ হাতে নিয়েছে। এ পরিকল্পনা দেশের বড় বড় সিটি করপোরেশনে পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হবে।

গতকাল শনিবার সকাল ১১টায় রাজধানীর কাকরাইলে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল ভবনের সেমিনার হলে ‘জাতীয় স্যানিটেশন মাস অক্টোবর-২০১৬’ উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো. ওয়ালী উল্লাহ এসব তথ্য জানান। সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী, ২০২১ সালের মধ্যে দেশে শতভাগ স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশনের আওতায় আনা সম্ভব হবে বলেও সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

স্থানীয় সরকার বিভাগের যুগ্ম সচিব মো. মাহবুব হোসেন, উপসচিব মো. খাইরুল ইসলাম, জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী শহীদ ইকবাল ও মো. দেলওয়ার হোসেন এতে উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, নিরাপদ পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশন বাংলাদেশ সরকারের একটি অগ্রাধিকারমূলক সেক্টর। নির্ধারিত লক্ষ্য অর্জনের জন্য স্থানীয় সরকার বিভাগ স্যানিটেশনকে অগ্রাধিকার দিয়ে জাতীয় পর্যায় থেকে শুরু করে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত স্যানিটেশন টাস্কফোর্স গঠন করেছে। এ ছাড়া অন্যান্য মন্ত্রণালয়সহ সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, উন্নয়ন সহযোগী প্রতিষ্ঠানগুলো, এনজিও এবং স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছে।

লিখিত বক্তব্যে প্রধান প্রকৌশলী মো. ওয়ালী উল্লাহ বলেন, সম্প্রতি প্রকাশিত জেএমপি (জয়েন্ট মনিটরিং প্রোগ্রাম) জরিপ প্রতিবেদন অনুযায়ী বর্তমানে মাত্র ১ শতাংশ লোক উন্মুক্ত স্থানে মলত্যাগ করে। এ ছাড়া দেশে ৬১ শতাংশ লোক উন্নত স্যানিটেশন ব্যবস্থার আওতায় এসেছে। ২৮ শতাংশ লোক যৌথ ল্যাট্রিন ব্যবহার করে, ১০ শতাংশ লোক অনুন্নত ল্যাট্রিন ব্যবহার করে। জরিপের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, বিশ্বের যে ১৬টি দেশ উন্মুক্ত স্থানে মলত্যাগের হার ২৫ শতাংশের বেশি হ্রাস করতে সক্ষম হয়েছে বাংলাদেশ তাদের মধ্যে অন্যতম।


মন্তব্য