kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ফিটনেস

ব্যায়াম হোক নিজের ইচ্ছামতো

২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



ব্যায়াম হোক নিজের ইচ্ছামতো

শরীর ঠিক রাখতে পরিশ্রমের বিকল্প নেই। আর পরিশ্রমের জন্য চাই ব্যায়াম।

কিন্তু বর্তমান সময়টা এমনই যে ব্যায়ামের জন্য সময় বের করা বড্ড কঠিন। আর রুটিন ধরে জিমে যাওয়াটা তো আরো কঠিন। আবার জিমে গেলেও একই ব্যায়াম বারবার করতে করতে ক্লান্ত হয়ে যাওয়াটা অস্বাভাবিক কিছু নয়। একঘেয়েমি আসাটাও অস্বাভাবিক কিছু নয়। ব্যায়ামের এই একঘেয়েমি থেকে রক্ষা পেতে করতে পারেন ইচ্ছামতো কিছু ব্যায়াম।

প্রত্যেকটি ব্যায়ামই কম সময়ে শেষ করতে হবে। একটি ব্যায়াম শেষ করেই শুরু করতে হবে অন্যটি। বিভিন্ন ধরনের ব্যায়ামে শরীরের বিভিন্ন মাংসপেশির সঞ্চালন হয়। ফলে ফিটনেসেরও উন্নতি হয়। কার্ডিওভাসকুলার ব্যায়াম ধীরে ধীরে দীর্ঘক্ষণ করলে তেমন কোনো লাভ হয় না। ক্রসফিটে তাই কার্ডিও ব্যায়াম অল্প সময়ে দ্রুতগতিতে করতে হবে। যেমন—জোরে জোরে জগিং করা বা দৌড়ানো।

ক্রসফিট অনুশীলনের জন্য একটি তালিকা তৈরি করে নেওয়া ভালো। যেমন—ডেড লিফট, ক্লিন, স্কোয়াট, প্রেসি, সি অ্যান্ড জি এবং স্ন্যাচের মতো অনুশীলন থাকার পাশাপাশি থাকবে পুল আপস, ডিপস, রোপ ক্লাইম্ব, পুশ আপস, প্রেসেস টু হ্যান্ড, ফ্লিন্স অ্যান্ড হোল্ডসের মতো জিমন্যাস্টিকসও। কোনটি আগে কোনটি পরে—এটা না ভেবে যেকোনো একটা দিয়েই শুরু করে দিন। ক্রসফিট অনুশীলনটা এমনই। একটি শেষ করেই শুরু করে দিন অন্যটি। একেবারে নিজের ইচ্ছামতো। এমন অনুশীলনের ফলে শরীর যেকোনো পরিস্থিতির জন্য তৈরি হয়ে পড়ে। মজার ব্যাপার যে এমন ব্যায়ামে আর একঘেয়েমি আসবে না। আর সঙ্গী হিসেবে যদি কেউ থাকে তাহলে তার সঙ্গে প্রতিযোগিতায়ও নামা যেতে পারে। কে আগে শেষ করতে পারে সেই প্রতিযোগিতায় অনুশীলনের মধ্যে একটা আনন্দও পাওয়া যাবে।

জিমের পাশাপাশি দৌড়, সাঁতার, রোয়িংয়ের মতো খেলায়ও অংশ নিতে হবে। শুধু ব্যায়াম করলে হবে না, খাবার তালিকায়ও নজর রাখতে হবে। শাকসবজি, চর্বি ছাড়া মাংস, বাদাম, অল্প শর্করা জাতীয় খাবার খেতে হবে। তেল, মসলা বেশি খাওয়া যাবে না। ভাত, রুটি, আলু, মিষ্টি, বেকারিতে তৈরি খাবার এড়িয়ে চলা ভালো।


মন্তব্য