kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আসকের পরিসংখ্যান

মানবাধিকার পরিস্থিতি উদ্বেগজনক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



গত জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এই ৯ মাসে দেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে বেসরকারি মানবাধিকার সংস্থা আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক)। সংস্থাটি বলেছে, বিদ্যমান অবস্থায় বাংলাদেশে মানবাধিকারের সার্বিক পরিস্থিতি ক্রমান্বয়ে উদ্বেগজনক হয়ে উঠছে, এর প্রভাবে সামাজিক নিরাপত্তাবলয়ও দুর্বল হয়ে পড়ছে।

ফলে পারিবারিক নির্যাতন, ধর্ষণ, ব্যক্তিগত কলহে হত্যাকাণ্ড বেড়ে যাচ্ছে এবং ব্যক্তিগত পর্যায়েও সহিংসতা বাড়ছে।

গতকাল শুক্রবার সংস্থাটির সহকারী পরিচালক জাফরিন সাত্তার স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এই পরিসংখ্যান তুলে ধরা হয়। বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত খবরের ভিত্তিতে এই পরিসংখ্যান তৈরি করা হয়েছে বলা বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।

এ বিষয়ে আসকের নির্বাহী পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) নূর খান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বিদ্যমান অবস্থায় বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি ক্রমান্বয়ে উদ্বেগজনক হয়ে উঠছে। এটি এখন যে অবস্থায় রয়েছে তা বেশ ভয়ংকর। দেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি এ রকম উদ্বেগজনক হলে সামাজিক নিরাপত্তাবলয় দুর্বল হয়ে পড়ে। ফলে পারিবারিক নির্যাতন, ধর্ষণ, ব্যক্তিগত কলহের ফলে হত্যাকাণ্ড বেড়ে যাচ্ছে এবং ব্যক্তিগত সহিংসতাও বাড়ছে। ’

পরিসংখ্যানে বলা হয়, গত ৯ মাসে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হেফাজতে ও ক্রসফায়ারে মোট ১৫০ জন মারা গেছে। এর মধ্যে র‍্যাবের ক্রসফায়ারে ৩৪, পুলিশের বন্দুকযুদ্ধে ৬১, ডিবি পুলিশের ক্রসফায়ারে ১১, পুলিশ-বিজিবির ক্রসফায়ারে এক, সোয়াতের ক্রসফায়ারে তিন, পুলিশের নির্যাতনে সাত, ডিবি পুলিশের নির্যাতনে এক, রেল পুলিশের নির্যাতনে এক, পুলিশের গুলিতে ৯, বিজিবির গুলিতে এক, যৌথ বাহিনীর থান্ডার বোল্ট অভিযানে ছয়, সোয়াতের স্ট্রম-২৬ অভিযানে ৯ জন মারা গেছে। এ ছাড়া থানাহাজতে অসুস্থ হয়ে চারজন ও রহস্যজনকভাবে দুজনের মৃত্যু হয়েছে।

ধর্ষণ : ৯ মাসে সারা দেশে ধর্ষণের শিকার হয়েছে মোট ৪৬৬ নারী। ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ২৬ নারীকে, ধর্ষণের পর আত্মহত্যা করেছে সাত নারী। এ ছাড়া ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে ৪৬ নারীকে।


মন্তব্য