kalerkantho

মঙ্গলবার। ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ । ৯ ফাল্গুন ১৪২৩। ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮।


এমবিবিএস ও বিডিএস ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে মতবিনিময়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ব্যবহার হচ্ছে নতুন প্রযুক্তি গুজব ছড়ালে কঠোর ব্যবস্থা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস ও বিডিএস ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে কোনো ধরনের গুজব ছড়ালে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রয়োগ করা হবে তথ্যপ্রযুক্তি আইন। এ ক্ষেত্রে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম মনিটরিং করা হবে। এ ছাড়া পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে এবার ব্যবহার করা হচ্ছে সর্বাধুনিক ডিজিটাল প্রযুক্তি। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম গত বুধবার স্বাস্থ্যবিষয়ক সাংবাদিকদের পেশাগত সংগঠন বাংলাদেশ হেলথ রিপোর্টার্স ফোরামের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এ তথ্য জানান। আগামী ৭ অক্টোবর এমবিবিএস ও ৪ নভেম্বর বিডিএস ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

মন্ত্রী এ সময় বলেন, মেডিক্যাল ভর্তি কোচিং নিয়ে অনেক ধরনের প্রশ্ন ওঠে। তাই আমরা ২৫ সেপ্টেম্বর থেকেই ওই সেন্টারগুলো বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছি। পাশাপাশি এসব কোচিং সেন্টার স্থায়ীভাবে বন্ধের বিষয়েও চিন্তাভাবনা চলছে। বিশেষ করে জামায়াত-শিবিরের ঘাঁটি বলে পরিচিত রেটিনা কোচিং সেন্টার বন্ধে বেশি জোর দেওয়া হবে।

তিনি জানান, এবার ভর্তি পরীক্ষায় সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ও স্বচ্ছতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আশা করি আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে এবার পরীক্ষা সম্পন্ন হবে।

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্যসচিব সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, অধিদপ্তরের পরিচালক (চিকিৎসা, শিক্ষা ও জনশক্তি উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. আব্দুর রশিদ প্রমুখ বক্তব্য দেন।


মন্তব্য