kalerkantho


বাসে চড়ে সড়কমন্ত্রী গেলেন মন্ত্রণালয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



বাসে চড়ে সড়কমন্ত্রী গেলেন মন্ত্রণালয়ে

রাজধানীর আসাদ গেটে লাইনে দাঁড়িয়ে গতকাল টিকিট কেটে বিআরটিসির যাত্রীবাহী বাসে করে সচিবালয়ে অফিস করতে যান সড়কমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ছবি : কালের কণ্ঠ

বিআরটিসির দোতলা বাসে চেপে অফিস করলেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের উদ্দেশে বাসে উঠে বসেন তিনি।

আসাদ গেট থেকে জাতীয় প্রেস ক্লাবে যেতে তাঁর সময় লাগে ৫০ মিনিট। পরে দুপুরে আবারও বিআরটিসির বাসে ফার্মগেট থেকে আব্দুল্লাহপুরে যান তিনি।

সংসদ ভবনের বাসা থেকে বের হয়ে সকাল ৯টা ৫০ এ আসাদ গেটে গিয়ে বিআরটিসির বাসে যেতে ভাড়া কত জিজ্ঞেস করতেই কাউন্টার থেকে জানানো হয়, ১০ টাকা। তবে ছাপানো টিকিট ছিল না বিআরটিসির কর্মীদের কাছে। কোনো ধরনের প্রটোকল ছাড়াই যাত্রীবেশে বাসে উঠে যাত্রীদের পাশে বসে, তাদের কথা শুনতে শুনতে, বাসের ভেতরের অবস্থা দেখতে দেখতে সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে যান সড়কমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বাসে সড়কমন্ত্রী দেখতে পান, ১২টি ফ্যান আছে। এগুলোর মধ্যে মাত্র একটি সচল। তিনি বিআরটিসির মতিঝিল ডিপো ম্যানেজার ও পরিচালককে (টেকনিক্যাল) কারণ দর্শানোর নির্দেশ দেন। বেসরকারি বাসের মতো সরকারি বিআরটিসির বাসে ছাত্রদের কাছ থেকে অর্ধেক ভাড়া না নিয়ে পুরো ভাড়া নেওয়ার অভিযোগ করে চারজন শিক্ষার্থী।

রাজীব আহমদ নামের এক শিক্ষার্থী কালের কণ্ঠকে বলে, মন্ত্রীর কাছে অভিযোগ করে ভালো লেগেছে।

ওই বাসের মহিলা যাত্রীদের অভিযোগ—তাদের নির্ধারিত আসনে পুরুষরা বসে থাকে। মন্ত্রী ধৈর্যসহকারে শিক্ষার্থী ও মহিলা যাত্রীদের কাছ থেকে এসব অভিযোগ মন দিয়ে শোনেন।

সড়কমন্ত্রী ১০টা ৪০ মিনিটে দোতলা বাসে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে নামেন। এরপর নিজ মন্ত্রণালয়ে কাজে যোগ দেন। পরে নিজের গাড়িযোগে ফার্মগেটে আসেন দুপুরে। ১২টা ৩৫ মিনিটে ফার্মগেট থেকে মতিঝিল-আব্দুল্লাহপুর রুটে বিআরটিসির বাসে উঠে পড়েন। তিনি বাসটির এসি মেরামতের উন্নতি প্রত্যক্ষ করেন।   পথে আব্দুল্লাহপুর যেতে তাঁকে প্রকট যানজটে পড়তে হয়নি। সড়কমন্ত্রী পরে গাজীপুরের কালীগঞ্জে একটি স্মরণসভায় অংশ নেন।


মন্তব্য