kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কৃষি খাতে পাঁচ বছরে ৪১ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



কৃষি উন্নয়নে সরকার গত পাঁচ বছরে সার, বিদ্যুৎসহ কৃষি খাতে মোট ৪১ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিয়েছে। এর মধ্যে ২০১২-১৩ অর্থবছরে সর্বাধিক ১১ হাজার ৯৯৯ কোটি টাকা ভর্তুকি দেওয়া হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হওয়া অধিবেশনে কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরীর অনুপস্থিতিতে তাঁর পক্ষে উত্তর দেন খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম। সরকারি দলের সংসদ সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরী শাওনের প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, ২০১১-১২ অর্থবছরে ছয়  হাজার ৪৯৯ কোটি, ২০১২-১৩ অর্থবছরে ১১ হাজার ৯৯৯ কোটি, ২০১৩-১৪ অর্থবছরে আট হাজার ৯৭৩ কোটি, ২০১৪-১৫ অর্থবছরে সাত হাজার ১০১ কোটি এবং ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ছয় হাজার ৪২৫ কোটি টাকা কৃষি খাতে ভর্তুকি প্রদান করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, কৃষকদের মৌসুমি ফল উৎপাদনে উৎসাহিত করতে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর প্রতিবছর ফলদ বৃক্ষরোপণ পক্ষ পালন করে। জাতীয় পর্যায়ে এবং জেলা ও উপজেলায় ফল মেলা হয়। এসব মেলায় উন্নতমানের ফল ও প্রযুক্তি প্রদর্শনের মাধ্যমে কৃষকদের উন্নত জাতের ফল চাষে উৎসাহিত করা হচ্ছে। তিনি আরো জানান, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট কর্তৃক উদ্ভাবিত বারি পেয়ারা-২ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে। বর্তমানে বারি মাল্টা-১-এর চাষ দেশের দক্ষিণাঞ্চলসহ পাহাড় ও বরেন্দ্র অঞ্চলে ব্যাপকভাবে সম্প্রসারিত হচ্ছে।

সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলমের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, সারের ক্রয়মূল্য চার দফায় কমানোর ফলে সুষম সার ব্যবহার নিশ্চিতকরণ, বোরো মৌসুমে সেচকাজে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া ৩০ শতাংশ ভর্তুকি মূল্যে কৃষি যন্ত্রপাতি কৃষক পর্যায়ে সরবরাহ করা হচ্ছে।


মন্তব্য