kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


শ্রদ্ধা ভালোবাসায় হান্নান শাহকে বিদায়

♦ ঢাকায় তিন দফা জানাজা
♦ গাজীপুরে দাফন আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



অন্তিম শয়ানের ক্ষণে নেতাকর্মী-সমর্থকদের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন আ স ম হান্নান শাহ। ওয়ান-ইলেভেনে দলের দুর্দিনে চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও তাঁর পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে নেতাকর্মীদের মনে স্থান করে নেওয়া এই নেতাকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণের মধ্য দিয়ে শেষ বিদায় জানাল তারা।

হৃদেরাগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার ভোরে সিঙ্গাপুরের র‍্যাফেলস সেন্টারে ৭৪ বছর বয়সে মারা যান এই রাজনীতিক।

হান্নান শাহর মরদেহ গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আনা হয়। এ সময় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ শীর্ষ নেতারা দলের পক্ষে কফিনটি দলীয় পতাকায় ঢেকে দিয়ে প্রয়াত নেতার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানান। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পক্ষেও দেওয়া হয় পুষ্পস্তবক।

এর আগে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনের সড়কে অস্থায়ীভাবে তৈরি কালো কাপড়ে মোড়ানো মঞ্চে বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরামের এই সদস্যের মরদেহ রাখা হয়। এখানে বাদ জোহর অনুষ্ঠিত জানাজায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, তরিকুল ইসলাম, এম কে আনোয়ার, রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, আবদুল মঈন খান, আবদুল্লাহ আল নোমান, মোহাম্মদ শাহজাহান, গিয়াস কাদের চৌধুরী, আহমেদ আজম খান, শওকত মাহমুদ, খন্দকার মাহবুব হোসেন, শাহজাহান ওমর প্রমুখ শ্রদ্ধা জানান।

জানাজার আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মরহুমের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, ‘তিনি (আ স ম হান্নান শাহ) শুধুই একজন সৈনিক ছিলেন না। তিনি সত্যিকার অর্থে একজন গণতন্ত্রের সৈনিক ছিলেন। বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তাঁর ভূমিকা চিরকাল স্মরণীয় থাকবে। বিশেষ করে বিএনপি ও বাংলাদেশ গণতন্ত্রের সংকটে পড়েছিল ওয়ান-ইলেভেনে অবৈধ সরকারের সময়ে। সেই সময়কালে বিএনপির পক্ষে, বাংলাদেশের মানুষের পক্ষে, গণতন্ত্রের পক্ষে সাহসী ভূমিকা পালন করেন হান্নান শাহ। আজ তিনি আমাদের মাঝ থেকে চলে গেছেন। আল্লাহর দরবারে আমরা তাঁর জন্য দোয়া চাই। আল্লাহ যেন তাঁকে বেহেশত নসিব করেন। ’

বিএনপি মহাসচিব জানান, আজ শুক্রবার বাদ জুমা গ্রামের বাড়ি গাজীপুরের কাপাসিয়ায় হান্নান শাহকে সমাহিত করা হবে। এ ছাড়া আগামীকাল বাদ আসর নয়াপল্টনের কার্যালয়ে হান্নান শাহ স্মরণে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল হবে।

এদিকে দাফনের আগে আজ আরো তিনটি জানাজা হবে গাজীপুরে। সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের (সিএমএইচ) হিমঘর থেকে সকালে সড়কপথে মরদেহ গাজীপুরে নিয়ে সকাল ৯টায় জয়দেবপুর রাজবাড়ী মাঠে, সাড়ে ১০টায় কাপাসিয়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এবং বিকেল ৩টায় প্রয়াতের নিজ এলাকা চালাবাজার উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজা হবে। এরপর ঘাগটিয়া গ্রামে বাবার করবের পাশে তাঁকে দাফন করা হবে।

গতকাল সকাল সাড়ে ১০টায় ডিওএইচএসের জামে মসজিদ ও সাড়ে ১১টায় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় হান্নান শাহর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। তৃতীয় দফা জানাজা অনুষ্ঠিত হয় মহাখালীর গাউসুল আজম জামে মসজিদে। পরে মরদেহ সিএমএইচএর হিমঘরে রাখা হয়।


মন্তব্য