kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


এমপি আউয়ালের বিরুদ্ধে মঞ্চে তাঁর দুই ভাই

পিরোজপুর প্রতিনিধি   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



এমপি আউয়ালের বিরুদ্ধে মঞ্চে তাঁর দুই ভাই

পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের এক মতবিনিময় সভায় স্থানীয় এমপি আউয়ালের বিরুদ্ধে আবারও প্রকাশ্যে মুখ খুললেন তাঁর দুই সহোদর। বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় উপজেলা সদরের দলীয় কার্যালয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট বেলায়েত হোসেনের সভাপতিত্বে ওই মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পিরোজপুর পৌর মেয়র আলহাজ হাবিবুর রহমান মালেক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হাকিম হাওলাদার, যুগ্ম সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ মজিবুর রহমান খালেক।

সভায় বক্তারা তাঁদের বক্তব্যে এমপি আউয়ালের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দলের ত্যাগী নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়নসহ গুটিকয়েক হাইব্রিড নেতাকে নিয়ে নিয়োগ ও টেন্ডার বাণিজ্যের অভিযোগ আনেন। ইউপি নির্বাচনে তিনি জননেত্রী শেখ হাসিনার মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীদের পক্ষ নেন। তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করতেও বাধ্য করেন বলে এ সময় বক্তারা অভিযোগ করেন।

এমপি আউয়ালের সহোদর ও অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি পিরোজপুর পৌর মেয়র আলহাজ হাবিবুর রহমান মালেক তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘২০০৮ সালের নির্বাচনে নাজিরপুরের মানুষ আউয়ালকে ভোট দিয়েছিল বলেই আজ তিনি নামের সঙ্গে এমপি শব্দটি ব্যবহার করতে পারছেন। অথচ আজ তিনি সেই নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করছেন না। তাঁর স্ত্রী-সন্তানদের অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে নেতাকর্মীরা অতিষ্ঠ। এর প্রতিবাদ করতেই আমরা তিন ভাই মিলেছি। আমরা আলোচনা করে জেলা নেতৃবৃন্দকে নিয়ে নির্যাতিত, অবহেলিত, ত্যাগী নেতাকর্মীদের রেখে পিরোজপুর জেলায় আওয়ামী লীগের রাজনীতি টিকিয়ে রাখার উদ্দেশ্যে আজ আপনাদের পাশে দাঁড়িয়েছি। আপনাদের কাছে আমাদের চাওয়ার কিছু নেই। যত দিন বেঁচে থাকব বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে নিয়ে আপনাদের পাশে থাকব। ’

এমপি আউয়ালের আরেক সহোদর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান খালেক বলেন, ‘এই নাজিরপুর হলো আওয়ামী লীগের ঘাঁটি। এখানের নেতাকর্মীরা যেকোনো পরিস্থিতিতে আওয়ামী লীগের পাশেই অবস্থান করেন। আমরাও যেকোনো পরিস্থিতিতে আপনাদের পাশেই থাকব। ত্যাগী নেতাকর্মীদের কোনো কিছুর বিনিময়ে আমরা ছেড়ে যাব না। উনি কাকে কতটা মূল্যায়ন করেছেন তা আপনারাই ভালো জানেন। আল্লাহকে সাক্ষী রেখে আজ আমরা ওনাকে ছেড়ে আপনাদের পাশে দাঁড়ালাম। ’ এ সময় নাজিরপুরের একাধিক নেতাকর্মী এমপি আউয়ালের দুর্নীতি আর হয়রানি তুলে ধরে মর্মস্পর্শী বক্তব্য দেন।

অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য অমূল্য রঞ্জন হালদার, আলহাজ শেখ আবুল বাশার, সহসভাপতি শাহজাহান তালুকদার, রাশিদা আকরাম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আ. রাজ্জাক বাদশা, সদর আওয়ামী লীগের সভাপতি সরদার মতিউর রহমান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের কমান্ডার শেখ আ. লতিফ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য

মোতাহার হোসেন, দীর্ঘা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহ আলম আকন প্রমুখ।


মন্তব্য