kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কওমি মাদ্রাসা আইন

বাস্তবায়নে ৯ জনের জাতীয় কমিটি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



বাংলাদেশ কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা কর্তৃপক্ষের প্রস্তাবিত ‘বাংলাদেশ কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা কর্তৃপক্ষ আইন ২০১৩’ সময়োপযোগী করে প্রয়োজনীয় সুপারিশ প্রণয়নের জন্য একটি জাতীয় কমিটি করেছে সরকার।

রাষ্ট্রপতির নির্দেশে গতকাল মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় এ-সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

১৫ কার্যদিবসের মধ্যে কমিটিকে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

৯ সদস্যের এই কমিটির আহ্বায়ক হলেন ইকরা বাংলাদেশের পরিচালক মাওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ। সদস্যসচিব হলেন টুঙ্গিপাড়ার গওহরডাঙ্গা মাদ্রাসার মহাপরিচালক মাওলানা মুফতি রুহুল আমিন।

অন্য সদস্যরা হলেন চট্টগ্রামের জামেয়া দারুল মাআরিফের মহাপরিচালক মাওলানা সুলতান যওক নদভী, পটিয়া মাদ্রাসার মহাপরিচালক মাওলানা আবদুল হালিম বোখারী, কিশোরগঞ্জের জামেয়া ইসলামিয়ার মোহতামিম মাওলানা আনোয়ার শাহ্, সিলেটের দক্ষিণকাছ হোসাইনিয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসার মাওলানা আব্দুল বাসেত বরকতপুরি, ঢাকার ফরিদাবাদ মাদ্রাসার মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, বসুন্ধরার ইসলামিক রিসার্চ সেন্টারের মুফতি এনামুল হক ও খুলনার জামিয়া মাদানীয়া মাদ্রাসার মাওলানা ইমদাদুল্লাহ কাশেমী।

কওমি মাদ্রাসার শিক্ষা ব্যবস্থাপনা, শিক্ষাদানের বিষয় এবং এর শিক্ষা সনদের সরকারি স্বীকৃতি দেওয়ার লক্ষ্যে সুপারিশমালা প্রণয়নের জন্য ১৭ সদস্যের কমিশন করা হয়েছিল ২০১২ সালে। ওই কমিশনের চেয়ারম্যান ছিলেন চট্টগ্রামের হাটহাজারী মাদ্রাসার প্রধান মাওলানা আহমদ শফি। কমিশন শিক্ষা আইনের খসড়া প্রস্তুত করলেও একটি পক্ষের বিরোধিতার কারণে তা আলোর মুখ দেখেনি। তিন বছর পর সেই আইন বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিল সরকার।


মন্তব্য