kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দেশসেরা প্রতিমা

সামসুল হাসান মীরন, নোয়াখালী   

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



দেশসেরা প্রতিমা

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনীতে তৈরি হচ্ছে প্রতিমা। ছবি : কালের কণ্ঠ

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। এবার এ পূজায় দেশের সব চেয়ে বড় প্রতিমা তৈরি হচ্ছে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনীতে।

চৌমুহনীর কলেজ রোডে রামেন্দ্র সাহার বাড়ির প্রাঙ্গণে বিজয়া সর্বজনীন দুর্গা মন্দিরে এ পূজার আয়োজন চলছে। প্রতিমা তৈরি করছেন শরীয়তপুর থেকে আসা শিল্পী অমল কৃষ্ণ পাল।

গত সোমবার সরেজমিনে দেখা গেছে, ৭১ ফুট উঁচু প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত কারিগররা। নির্দিষ্ট সময়ের আগে মণ্ডপ তৈরির কাজ শেষ করতে সবাই তত্পর। দিনরাত সমান তালে কাজ চলছে। দম ফেলার ফুরসত নেই। কেউ কাঠ কাটছে, কেউবা বাঁশ। আবার কেউ মাটি ও সিমেন্ট দিয়ে দুর্গাসহ অন্যান্য প্রতিমার অবয়ব তৈরি করছে। এভাবে কোনো না কোনো কাজে ব্যস্ত সবাই।

শিল্পী অমল কৃষ্ণ পাল বলেন, ‘১৯৭৪ সালে ছাত্রজীবন থেকে প্রতিমা বানাই। গত ২০ বছর ধরে এই নোয়াখালীতেই প্রতিমা বানাচ্ছি। এর আগে এত বড় প্রতিমা বানাইনি। এটা আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ প্রতিমা। ’ কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘এর আগে বাংলাদেশের কোথাও এত বড় দুর্গা প্রতিমা তৈরি করা হয়নি। ১২ জন সহযোগী ও কারিগর নিয়ে গত আড়াই মাস ধরে এ কাজ করছি। পূর্ণাঙ্গ প্রতিমা তৈরি করতে পূজার আগ দিন পর্যন্ত সময় লেগে যাবে। ’

বিজয়া সর্বজনীন দুর্গা মন্দিরের কোষাধ্যক্ষ রনি সাহা বলেন, ‘ভারতের দেশপ্রিয় পার্কে গত বছর ৮৭ ফুট উঁচু প্রতিমা তৈরি করা হয়েছিল। বাংলাদেশে এই প্রথম ৭১ ফুট প্রতিমা তৈরি করা হচ্ছে। এ প্রতিমা তৈরির মধ্যে দিয়ে সারাবিশ্বে প্রমাণ করা হবে, এদেশ সাম্প্র্রদায়িক সম্প্র্রীতির দেশ। ’

বিজয়া সর্বজনীন দুর্গা মন্দিরের সিনিয়র সহসভাপতি শ্রী শান্তনু সাহা বলেন, ‘মন্দিরের ২০ বছরপূর্তি উপলক্ষে এবার বড় আয়োজন করা হয়েছে। প্রতিমা তৈরিতে বাজেট ধরা হয়েছে ৩৫ লাখ টাকা। পূজার শেষ দিন পর্যন্ত প্রশাসনের কাছে নিরাপত্তা চাওয়া হয়েছে। ’

বিজয়া সর্বজনীন দুর্গা মন্দিরের সহসাংগঠনিক সম্পাদক জয় ভূইয়া বলেন, ‘প্রতি বছরই চৌমুহনীতে বিভিন্ন আদলে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক পুরাকীর্তি অনুকরণে মণ্ডপ তৈরি করা হয়। এটি এ বছর সবার চেয়ে আলাদা। ’

এত বড় প্রতিমা কেন? প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘অসুরকে বধ করার জন্য দেবী দুর্গাকে সর্বোচ্চ শৃঙ্গ পর্যন্ত উঠতে হয়, এরই প্রতীকী রূপ এ উচ্চতা। ’

নোয়াখালী জেলা পূজামণ্ডপের সাধারণ সম্পাদক কিশোর চন্দ্র শীল বলেন, ‘জেলায় এবার ১৫৮টি পূজামণ্ডপ তৈরি হচ্ছে। সর্ববৃহৎ প্রতিমা তৈরি করে বিজয়া সর্বজনীন দুর্গা মন্দির তাদের শ্রেষ্ঠত্বের প্রমাণ রাখছে। ’

নোয়াখালীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সুব্রত কুমার দে বলেন, ‘প্রশাসনের পক্ষ থেকে সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। ’


মন্তব্য