kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


পিতৃভিটায় কাঁদলেন ভারতের অর্থনীতিবিদ ড. বিবেক রায়

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



‘আমরা দিল্লিতে থাকি। যদি কখনো কারোর দিল্লিতে যাওয়ার সুযোগ হয় তবে ভুলবেন না পইলের মাটির একটি অংশ দিল্লিতেও আছে।

সম্পর্ক রাখবেন। নিঃসন্দেহে যোগাযোগ রাখবেন। এলাম, দেখলাম, জানলাম। আবারও আসব। ’ মঙ্গলবার হবিগঞ্জ সদর উপজেলার পইল গ্রামে পিতৃভিটা দেখতে এসে কথাগুলো বলছিলেন ভারতের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ট্রান্সফরমিং ইন্ডিয়া তথা ‘নীতি আয়োগের’ সদস্য অর্থনীতিবিদ ও গবেষক ড. বিবেক দেবরায়।

জন্মের পর নিজের পিতৃভিটা দেখেতে এই প্রথম পইল গ্রামে এলেন ড. বিবেক রায়। ৬১ বছর বয়সী এ অর্থনীতিবিদ ১৯৫৫ সালে ভারতের মেঘালয় রাজ্যের রাজাধানী শিলংয়ে জন্ম নেন। ভারতের পরিকল্পনা কমিশনের পরিবর্তিত নাম নীতি আয়োগের তিন স্থায়ী সদস্যের মধ্যে অন্যতম বিবেক রায় ভারতে প্রখ্যাত অর্থনীতিবিদ হিসেবে পরিচিত। ১৯৪৭ সালে তাঁর দাদা রজনীকান্ত দেব পরিবারের সদস্যদের নিয়ে এ দেশ ছেড়ে চলে যান।

গতকাল বিকেলে পইল গ্রামে পৌঁছলে ড. বিবেক রায়কে বরণ করেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমদুল হক, ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ মঈনুল হকসহ গ্রামের সর্বস্তরের মানুষ। স্থানীয় স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা তাঁকে এক নজর দেখতে রাস্তায় দাঁড়িয়ে স্বাগত জানায়।

পইল গ্রামের বিপিন চন্দ্র পাল পাঠাগার মিলনায়তনে তাঁকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, এর আগে অনেকবার ঢাকায় এসেছেন। এবার পিতৃভিটা দেখবেন বলে সংকল্প নিয়েই বাংলাদেশে আসেন। তিনি বলেন, ‘আজ আমি অভিভূত। অপ্রত্যাশিত জনসমাবেশ দেখে আমি আবেগ আপ্লুত। চোখের জল এসে গেছে। ’

উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমদুল হকের সভাপতিত্বে ও পইল ইউপি চেয়ারম্যান আরিফুল হকের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মিসেস সুকন্যা মুখার্জি, দ্য এশিয়ান এইজের চেয়ারম্যান শোয়েব চৌধুরী, একই প্রতিষ্ঠানের উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) শামীম চৌধুরী ও চিফ এডিটর জেসমিন চৌধুরী। পরে হেঁটে বিবেক রায় পিতৃভিটায় যান।


মন্তব্য