kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


শিকল বেঁধে শিশু নির্যাতন

নির্যাতনকারী কামরুল কারাগারে

মাদারীপুর প্রতিনিধি   

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



মাদারীপুরের শিবচরে শিশু মেহেদী হাসানকে শিকলে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় গত রবিবার রাতে নির্যাতনকারী কামরুল বেপারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার দুপুরে তাকে আদালতে নেওয়া হলে মাদারীপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আফরোজা বেগম কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

এর আগে শিবচর থানায় চারজনকে আসামি করে শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন শিশু মেহেদীর বাবা মনোয়ার খাঁ। এদিকে পরিবারের আতঙ্ক থাকায় নির্যাতনের শিকার মেহেদীকে হাসপাতালে পুলিশি প্রহরায় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

আহত মেহেদীর মা পারুল বেগম বলেন, ‘ডাক্তার আমার ছেলেকে উন্নত চিকিৎসার কথা বলেছেন। কিন্তু আমরা খুব গরিব; উন্নত চিকিৎসার টাকা কোথায় পাব? মেহেদী এখনো ভালোভাবে কথা বলতে পারে না। ওর সারা শরীরে ব্যথা। এদিকে আমরা প্রভাবশালীদের ভয়ে আতঙ্কে আছি। ’

শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক সাঈদ আহমেদ বলেন, ‘মেহেদীকে রবিবার সন্ধ্যায় যখন ভর্তি করা হয় তখন তার সারা শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়। সে শঙ্কামুক্ত হলেও তার ডিজিটাল এক্স-রে এবং উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন। ’

উল্লেখ্য, শিবচরের পার্শ্ববর্তী শরীয়তপুর জেলার জাজিরার বি কে নগর পশ্চিম কাজীকান্দি গ্রামের মনোয়ার খানের ছেলে মেহেদী হাসান ডিশ লাইনের কর্মী। ঈদের আগে কামরুল বেপারীর ঘরে ডিশ লাইনের কাজ করে মেহেদী। ওই সময় দুটি মোবাইল ফোনসেট হারিয়ে যায় বলে দাবি করে কামরুল। এরই জের ধরে গত শনিবার দুপুর ১২টার দিকে মেহেদীকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে আসে কামরুল। এরপর মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে মারধর করে। পরে ঘরে হাত-পায়ে ও গলায় লোহার শিকল বেঁধে আটকে রাখে। খবর পেয়ে শিবচর থানার পুলিশ রবিবার সন্ধ্যার দিকে মেহেদীকে উদ্ধার করে।


মন্তব্য