kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বাকেরগঞ্জে আটকের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ডাকাত নিহত

বরিশাল অফিস   

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



আটকের ছয় ঘণ্টার মধ্যেই বরিশালের বাকেরগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক ডাকাত সদস্য নিহত হয়েছে। গত রবিবার দিবাগত রাতে পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডে রুহিত্যার পাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে বলে দাবি করেছে পুলিশ।

নিহত ফরিদ উদ্দিন আহমেদ খোকন (৩৫) উপজেলার মহেশপুর এলাকার জবান আলী খানের ছেলে। পুলিশের মতে সে তালিকাভুক্ত ডাকাতদলের সদস্য। ঘটনাস্থল থেকে ৯ রাউন্ড গুলি, দুটি আগ্নেয়াস্ত্র ও দুটি ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

বাকেরগঞ্জ থানা পুলিশের একটি সূত্র জানায়. গোপন খবরের ভিত্তিতে রবিবার রাত ৮টার দিকে মহেশপুর এলাকা থেকে খোকনকে আটক করা হয়। ওই রাতেই তার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী সহকারী পুলিশ সুপার (সদর ও সার্কেল) শাহাবুদ্দিন কবিরের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল তাকে সঙ্গে নিয়ে অস্ত্র উদ্ধারের জন্য বের হয়। দলটি পৌর শহরের রুহিত্যার পাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে পৌঁছা মাত্র আগে থেকে ওত পেতে থাকা খোকনের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে শুরু করে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোড়ে। গোলাগুলির এক পর্যায়ে গুলিবিদ্ধ হয় খোকন। প্রায় ৩০ মিনিট বন্দুকযুদ্ধ শেষে খোকনের সহযোগীরা পালিয়ে যায়। খোকনকে উদ্ধার করে বাকেরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করানো হয়। চিকিৎসারত অবস্থায় হাসপাতালেই তার মৃত্যু হয়।

বাকেরগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মো. হারুন-অর-রশিদ কালের কণ্ঠকে জানান, নিহত খোকন পুলিশের তালিকাভুক্ত ডাকাতদলের সদস্য ছিল। তার বিরুদ্ধে হত্যা, ডাকাতিসহ অন্তত ১৭টি মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ৯ রাউন্ড গুলি, দুটি আগ্নেয়াস্ত্র ও দুটি ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় খোকনের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।


মন্তব্য