kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিলুপ্ত ছিটবাসী ভোট দেবে ৩১ অক্টোবর

কাজী হাফিজ   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



বিলুপ্ত ছিটবাসী ভোট দেবে ৩১ অক্টোবর

বিলুপ্ত ছিটমহলের বাসিন্দারা আগামী ৩১ অক্টোবর বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে যাচ্ছে। ওই সব বিলুপ্ত ছিটমহলভুক্ত ২৯টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে ২৩টিতে নিজেদের ভোটে প্রথমবারের মতো চেয়ারম্যান, সাধারণ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সদস্য নির্বাচন করবে তারা।

ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে ছিটমহল বিনিময়ের প্রায় ১৪ মাস পর এই সুযোগ পাচ্ছে তারা।

নির্বাচন কমিশন সচিবালয় সূত্র জানায়, বিলুপ্ত ছিটমহলের বাসিন্দাদের ভোটার করার কাজটি ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। গত ৪ সেপ্টেম্বর তাদের ভোটার তালিকাও চূড়ান্ত করা হয়েছে। বিলুপ্ত ছিটমহল সংযুক্ত ইউনিয়ন পরিষদগুলোর মধ্যে কুড়িগ্রামের ছয়টি, লালমনিরহাটের ৯টি ও পঞ্চগড়ের আটটিতে ভোট হবে আগামী ৩১ অক্টোবর। আর সীমানাসংক্রান্ত জটিলতার জন্য পঞ্চগড়ের দেবিগঞ্জ, দেবিবুবা, বলরামপুরসহ নীলফামারীর তিনটি ইউপিতে এখনই ভোট হচ্ছে না।

বিলুপ্ত ছিটমহলের বাসিন্দাদের ভোটার করা ও সীমানা নির্ধারণ সম্পন্ন করার অপেক্ষায় এসব ইউপির নির্বাচন স্থগিত করে রেখেছিল নির্বাচন কমিশন। এসব ইউপিতে নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। ঘোষিত তফসিল অনুসারে মনোনয়নপত্র জমার শেষ তারিখ ৬ অক্টোবর, যাচাই-বাছাই ৭ অক্টোবর ও প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১৪ অক্টোবর।

জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশনার মো. শাহ নেওয়াজ বলেন, বিলুপ্ত ছিটমহলের বাসিন্দাদের ভোটার করার কাজ সম্পন্ন হয়েছে। সীমানাও নির্ধারণ করা হয়েছে। এখন তারা ভোটাধিকার প্রয়োগে করবে।   এনআইডির স্মার্ট কার্ডও বিতরণ করা হবে কুড়িগ্রামের বিলুপ্ত ছিটমহল দাশিয়ারছড়ায়।

এদিকে সদ্য সমাপ্ত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নানা কারণে যেসব কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে সেগুলোতেও ৩১ অক্টোবর ভোট গ্রহণ করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এ ছাড়া যেসব ইউপিতে প্রার্থীরা সমভোট পেয়েছেন সেগুলোসহ একই দিনে কিছু ইউপিতে পুনঃভোট হবে। ইসির উপসচিব ফরহাদ আহাম্মদ খান এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, স্থগিত বা সমভোটপ্রাপ্তদের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার প্রয়োজন পড়বে না। যেসব ইউপিতে নতুন করে ভোট হবে সেগুলোতে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ৬ অক্টোবর। যাচাই-বাছাই ৭ অক্টোবর এবং প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ১৪ অক্টোবর।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘ ৬৮ বছর পর বাংলাদেশ-ভারত স্থলসীমান্ত চুক্তি অনুযায়ী গত বছরের ১ আগস্ট বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ভারতের ১১১টি ছিটমহল বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্ত হয়। একইভাবে ভারতের মধ্যে থাকা বাংলাদেশের ৫১টি ছিটমহল ভারতের অংশ হয়ে যায়। গত ১০ জুলাই থেকে ১৬ জুলাই পর্যন্ত বাংলাদেশ অংশে বিলুপ্ত ছিটমহলের বাসিন্দাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটার তালিকার কাজ শুরু হয়। সেখানে সাড়ে ১০ হাজারের মতো নাগরিককে ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।


মন্তব্য