kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আগাম শীতের সবজি চাষ

ফখরে আলম, যশোর   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আগাম শীতের সবজি চাষ

শীত আসেনি। তার আগেই যশোরে শুরু হয়েছে শীতের সবজি চাষ। ছবি : ফিরোজ গাজী

দুই টাকা কেজি পটোল, তিন টাকা কেজি করলা বিক্রির পর অতিবর্ষণে ক্ষতিগ্রস্ত যশোরের সবজিচাষিরা লোকসান পুষিয়ে নেওয়ার জন্য কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছে। শীতকালীন শাকসবজির আগাম চাষ করে সেই বিবর্ণ মাঠ রাঙিয়ে তুলেছে।

সবজি চাষের জন্য প্রসিদ্ধ যশোরের কয়েকটি গ্রাম ঘুরে চাষিদের মহাকর্মযজ্ঞের এমন দৃশ্য চোখে পড়েছে।

সবজিভাণ্ডার হিসেবে খ্যাত যশোরে এ বছর ১৫ হাজার ৯৪৫ হেক্টর জমিতে গ্রীষ্মকালীন সবজি চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল। চাষের লক্ষ্যমাত্রা পূরণের পাশাপাশি পটোল ও করলার বাম্পার ফলন হয়েছিল এসব অঞ্চলের জমিতে।   এ জন্য এ দুটি ফসলের দাম একেবারেই কমে যায়। একপর্যায়ে কৃষক দুই টাকা কেজি পটোল, তিন টাকা কেজি করলা বিক্রি করতে বাধ্য হয়। এরপর গত আগস্ট মাসে দুই দফা ভারি বর্ষণে সবজি ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি হয়। কৃষক দিশাহারা হয়ে পড়ে। এই ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার জন্য এখন গ্রামে গ্রামে শীতকালীন আগাম সবজি চাষে কৃষক ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। যশোর সদর উপজেলার হৈবতপুর, মথুরাপুর, শাহাবাজপুর, মোস্তফাপুর, নোঙ্গরপুর, মনোহরপুর, রাজাপুর, হুদারাজাপুর, এনায়েতপুর গ্রাম ঘুরে দেখা গেছে, সবজিচাষিরা লাল শাক ক্ষেত পরিচর্যা করছে। যত্ন নিচ্ছে ফুলকপি ও বাঁধাকপি ক্ষেতের।

নোঙ্গরপুর গ্রামের সবজিচাষি টুকু হোসেন জানান, খুব কম সময়ের মধ্যেই তোলা যায় আর দামও ভালো পাওয়া যায়। তাই এক বিঘা জমিতে লাল শাক চাষ করেছি এবং তা ১০ হাজার টাকায় বিক্রিও করে ফেলেছি। এখন সেই জমিতে বাঁধাকপির চাষ করছি। একই গ্রামের বদরুল আলম এক বিঘা জমিতে জাপানের আগাম জাতের ‘কেকে ক্রস’ বাঁধাকপির চাষ করেছেন। তিনি বলেন, এক বিঘা জমিতে বাঁধাকপির চাষ করতে ১০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। কপাল খুললে এই বাঁধাকপি ২০ হাজার টাকায় বিক্রি হবে। এ গ্রামের রাজু হোসেন ১০ কাঠা জমিতে ফুলকপি ও ১০ কাঠা জমিতে বাঁধাকপির চাষ করেছেন। তিনি বলেন, ‘করলা চাষ করে মাজা ভেঙে গেছে। এই ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার জন্য আগাম ফুলকপি ও বাঁধাকপির চাষ করেছি। আকাশ পরিষ্কার থাকলে ১৫ দিনের মধ্যেই কপি বিক্রি করতে পারব। ’

মনোহরপুর ব্লকের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল ওদুদ বলেন, ‘কম দামে সবজি বিক্রি আর অতিবর্ষণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে সবজিচাষিরা লোকসান পুুষিয়ে নেওয়ার জন্য জোট বেঁধে মাঠে নেমেছে। আমার ইউনিয়নে এরই মধ্যে ৩৪ হেক্টর জমিতে বাঁধাকপি ও লাল শাকের চাষ হয়েছে। ’


মন্তব্য