kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


এলডিপির একমাত্র জনপ্রতিনিধি আ. লীগে যোগ দেবেন কাল

নূপুর দেব, চট্টগ্রাম   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



দীর্ঘ দুই যুগের বেশি সময় বর্তমান এলডিপি সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রমের সঙ্গে থাকা চন্দনাইশ উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল জব্বার চৌধুরী আগামীকাল শনিবার আওয়ামী লীগে যোগ দিচ্ছেন। টানা দুই বার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে তিনিই ছিলেন সারা দেশে এ দলের একমাত্র জনপ্রতিনিধি।

তাঁর নেতৃত্বে ৮ থেকে ১০ হাজার স্থানীয় এলডিপি ও বিএনপির কর্মী-সমর্থক স্থানীয় আওয়ামী লীগ সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরীকে ফুল দিয়ে সরকারি দলে যোগ দিচ্ছে। এর মধ্যে বেশির ভাগই এলডিপির (লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি)। তবে এ যোগদান নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগে তোলপাড় চলছে। জব্বার দলটির কয়েক হাজার নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন। এ ছাড়া ছাত্রলীগ নেতা হত্যাসহ একাধিক মামলাও রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। ফলে অনেকে ওই যোগদান অনুষ্ঠানে যাবেন না বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

জব্বার চৌধুরী গতকাল বিকেলে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘জনগণ উদ্বুদ্ধ করেছে আমাকে আওয়ামী লীগে যোগদান করতে। আমিসহ প্রায় ১০ হাজার এলডিপি ও বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী এমপি সাহেবের হাতে ফুল দিয়ে যোগদান করব। এটা এলডিপির জন্য একটি বড় আঘাত। ’

জব্বার চৌধুরী আরো বলেন, ‘আমি ছাত্র জীবনে ছাত্রলীগ করেছি। ’৯১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় আসলে কর্নেল অলির হাত ধরে আমি বিএনপির যুব সংগঠন যুবদলে যোগ দেই। ১৯৯৮ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুবদলের সভাপতি ছিলাম। এলডিপি গঠিত হলে আবার অলি সাহেবের হাত ধরে আমি এই দলে যোগদান করি। ২০০৮ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত গণতান্ত্রিক যুবদলের সহসভাপতি ছিলাম। গত বছর এলডিপি কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদকের পদ পাই। ’

ছাত্রলীগ নেতা রমিজুল আলম হত্যাসহ একাধিক মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে আবদুল জব্বার চৌধুরী বলেন, ‘যে তিনটি মামলা ছিল, সেগুলোতে জামিনে আছি। ’

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেন, ‘দল পরিবর্তনের সংস্কৃতিতে আমি বিশ্বাসী নই। সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরী আমাকে জানিয়েছেন জব্বার চৌধুরী শনিবার যোগদান করবেন। ’

প্রসঙ্গত, গত উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মোহাম্মদ কাসেমকে হারিয়ে কর্নেল অলির ডানহাত হিসেবে পরিচিত আবদুল জব্বার চৌধুরী দ্বিতীয়বারের মতো চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। দেশের আর কোথাও এলডিপির জনপ্রতিনিধি নেই।

প্রায় ৯ মাস আগে কর্নেল অলির বড় ভাইয়ের ছেলে আইয়ুব কুতুবী পৌরসভার মেয়র পদে নির্বাচন করে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মাহবুবুল আলম খোকার কাছে পরাজিত হন। এরপর আবদুল জব্বার চৌধুরীকে এলডিপি থেকে বহিষ্কার করা হয়। তবে জব্বারের দাবি, তিনি ওই দলেই আছেন।


মন্তব্য