kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


চাকরিতে পদোন্নতি না হওয়ার ৬ কারণ

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



চাকরিতে পদোন্নতি না হওয়ার ৬ কারণ

প্রতিষ্ঠানে দীর্ঘদিন কাজ করার পরও অনেকের পদোন্নতি হয় না কিংবা বেতন বাড়ে না। এ ক্ষেত্রে কয়েকটি কারণ তুলে ধরা হলো এ লেখায়।

১. আপনার অনাগ্রহ : আপনি যদি পদোন্নতি কিংবা বেতন বৃদ্ধির বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে না দেখেন তাহলে বিষয়টি অফিসেও গুরুত্ব পাবে না। আর এতে আপনার অফিসের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ মনে করতে পারে, আপনার পদোন্নতি খুব একটা প্রয়োজন নেই।

২. অতিরিক্ত তাড়াহুড়া : অনেকে নতুন চাকরিতে ঢুকেই পদোন্নতির জন্য চাপ দেওয়া শুরু করেন। তবে এ চাপ হিতে বিপরীত কাজ করতে পারে। আপনার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ আপনাকে অস্থির কিংবা অস্বাভাবিক মনে করতে পারে। মনে রাখতে হবে, যেকোনো প্রতিষ্ঠানে ঢুকেই তিন-চার মাস পর পদোন্নতি কিংবা বেতন বৃদ্ধির অনুরোধ করা যায় না। কমপক্ষে এক বছর পার করতে হয় নিজেকে নিষ্ঠাবান প্রমাণ করার জন্য।

৩. প্রস্তুতিহীনতা : এ জন্য আপনাকেই উদ্যোগ নিতে হবে। আপনার অফিসের কর্তার সঙ্গে আলোচনা করতে হবে। আর এ আলোচনায় কোনোমতেই অপ্রস্তুত অবস্থায় যাওয়া যাবে না। এ জন্য আপনার নিজের অগ্রগতি ও অন্যান্য বিষয় জানাতে হবে।

৪. চাহিদার অভাব : আপনি যদি বেতন বৃদ্ধির আলোচনা করতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে একটি মিটিংয়ে বসেন তাহলে সর্বদা নিজের চাহিদার বিষয়টি জেনে রাখবেন। অন্যথায় সে মিটিংয়ে খুব একটা ফল আসবে না। আপনি যদি সঠিকভাবে নিজের কোন পদটি প্রয়োজন কিংবা কত টাকা বেতন প্রয়োজন, তা বলতে না পারেন তাহলে বিষয়টি অর্থবহ হবে না।

৫. ভিন্ন চাকরির প্রসঙ্গ : প্রতিষ্ঠানে আপনি যে পদে, যে বেতনে চাকরি করছেন, সে পদেই প্রতিষ্ঠান আপনাকে রাখতে চাইবে। অন্যদিকে আপনি যদি জানান যে ভিন্ন কোনো প্রতিষ্ঠানে ভালো সুযোগ-সুবিধা পেলে আপনি চলে যাবেন, তখন স্বভাবতই আপনার সুযোগ-সুবিধা বাড়াতে বাধ্য হবে প্রতিষ্ঠান।

৬. ন্যায় কামনা : আপনি যদি প্রতিষ্ঠানে বেতন কত চান এ প্রসঙ্গে ন্যায় কামনা করেন তাহলে তা কার্যকর হবে না। কারণ এটি আপনার আগ্রাসী নয় বরং রক্ষণাত্মক মনোভাব প্রকাশ করবে। আর এতে প্রতিষ্ঠানের কর্তারা আপনার বেতন সেভাবে বৃদ্ধি করতে আগ্রহী হবেন না।

বিজনেস ইনসাইডার অবলম্বনে ওমর শরীফ পল্লব


মন্তব্য