kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর নির্মাণ

সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে জাপানি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে চুক্তি হয়েছে জাপানের নিপ্পন কয়ি কম্পানির সঙ্গে বাংলাদেশের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (ববিচক)। গতকাল বুধবার সকালে কুর্মিটোলায় বেবিচকের প্রধান কার্যালয়ে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন বেবিচকের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এহসানুল গনি চৌধুরী এবং নিপ্পন কয়ি কম্পানির ডেপুটি ডিরেক্টর জেনারেল তশিকাজু কামবার।

এহসানুল গনি চৌধুরী বলেন, বিমানবন্দরের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের কাজ আগামী ১৮ মাসের মধ্যে শেষ হবে। এতে ব্যয় হবে ১২০ কোটি টাকা। অর্থায়ন করবে সিভিল এভিয়েশন অথরিটি অব বাংলাদেশ (ক্যাব)। এ প্রতিষ্ঠানটি সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে স্থান ও মহাপরিকল্পনা তৈরি করবে। জাপানি প্রতিষ্ঠান পরামর্শ দেবে।  

বিমানবন্দরটি কোথায় হবে সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কিছু না জানালেও দক্ষিণাঞ্চলকে প্রাধান্য দেওয়ার বিষয়ে ইঙ্গিত দেন ক্যাব চেয়ারম্যান। যে ৯টি স্থানে প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে সেগুলো নিপ্পন কয়ি পর্যালোচনা করবে।

ক্যাব চেয়ারম্যান জানান, বঙ্গবন্ধু বিমানবন্দর নির্মাণে অনেক সময় লাগবে। তার আগ পর্যন্ত চাপ সামলাতে শাহজালাল বিমানবন্দরে নির্মাণ করা হবে থার্ড টার্মিনাল। আগামী তিন বছরের মধ্যে এ কাজ শেষ হলে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বাংলাদেশে হাব করার উজ্জ্বল সম্ভাবনা সৃষ্টি হবে।

চুক্তির শর্তানুযায়ী ১৮ মাসের মধ্যে এ প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করা সম্ভব কি না এ প্রতিনিধির এমন প্রশ্নের জবাবে প্রকল্প ম্যানেজার ইউহারা বলেন, এটা বড় কাজ তাতে কোনো সন্দেহ নেই। নিপ্পন ১৮ মাসেই বঙ্গবন্ধু প্রকল্পের সমীক্ষা প্রতিবেদন তৈরি করার যোগ্যতা রাখে এবং তা করা সম্ভব।


মন্তব্য