kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


পুলিশের গুলিতে রিকশাচালক আহত

তদন্ত কমিটি গঠন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



রাজধানীর পল্টন মোড়ে পুলিশ কনস্টেবলের শটগানের গুলিতে এক রিকশাচালক আহত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে এই ঘটনা ঘটে।

হানিফ (৩৫) নামের এই ব্যক্তিকে প্রথমে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল এবং পরে রাজারবাগ পুলিশ লাইনস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁর ডান বাহু, কনুই, পিঠের ডানপাশে ও কোমরের মাঝামাঝি অংশে চারটি রাবার বুলেট বিদ্ধ হয়।

পুলিশের দাবি, শটগান থেকে অসাবধানতাবসত গুলি বেরিয়ে এ ঘটনাটি ঘটে।

তবে আহত হানিফের অভিযোগ, তাঁকে লক্ষ্য করে চার রাউন্ড গুলি ছোড়েন ওই কনস্টেবল।

ঘটনাটি তদন্তে মতিঝিল বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার তারেক-বিন রশিদকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি কমিটি করা হয়েছে।

পল্টন থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, পুলিশ কনস্টেবল কারক চন্দ্র ঘোষ দায়িত্ব পালনকালে তাঁর অসতর্কতায় শটগান থেকে গুলি বেরিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। তিনি এক বছরের প্রশিক্ষণ শেষে ৯ দিন আগে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে যোগ দেন।

আহত হানিফ যাত্রাবাড়ীর মীরহাজিরবাগ এলাকায় থাকেন। তাঁর গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার মুরাদনগরে।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে হানিফ সাংবাদিকদের বলেন, যাত্রীর অপেক্ষায় তিনি বিকেল ৪টার দিকে পল্টন মোড়ে রিকশা নিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন। এ সময় পাশের ফুটপাতে দাঁড়িয়েছিলেন কয়েকজন পুলিশ সদস্য। হঠাৎ তাঁদের দিক থেকে গুলি এসে তাঁর হাতে, পিঠে ও কোমরে বিদ্ধ হয়। এতে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে পুলিশ তাঁকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, হানিফের শরীরে চারটি গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে। এগুলো ছররা বা শর্টগানের গুলি। তিনি শঙ্কামুক্ত।

পুলিশের মতিঝিল বিভাগের উপকমিশনার আনোয়ার হোসেন বলেন, পুলিশের ভাষায় এ ধরনের ঘটনাকে বলে ‘মিস ফায়ার’। নবাগত ওই সদস্য গতকালই প্রথম দায়িত্ব পালন শুরু করেন। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি আরো জানান, রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে আহত রিকশাচালকের চিকিৎসার সব খরচ পুলিশ বহন করবে।

প্রসঙ্গত,  গত ১৫ সেপ্টেম্বর রাতে বনানীর ২ নম্বর সড়কে যুবলীগ নেতা ইউসুফ সরদার সোহেলের গুলিতে আহত হন এক রিকশাচালক। ভাড়া নিয়ে বাগিবতণ্ডার জের ধরে তাঁকে গুলি করা হয়। যুবলীগ নেতা ছিনতাইয়ের মিথ্যা জিডি করে ঘটনাটিকে ভিন্ন খাতে নেওয়ার চেষ্টা চালান। তবে তদন্তে প্রকৃত ঘটনা বের হয়ে আসায় পরদিন পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করে। তাঁর বৈধ অস্ত্রটি জব্দ করা হয়।


মন্তব্য