kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


শিশুদের খাবার নিয়ে প্রচলিত ভুল

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



শিশুদের খাবার নিয়ে প্রচলিত ভুল

খাবার নিয়ে মানুষের মধ্যে অনেক ভুল ধারণা প্রচলিত রয়েছে। যুগ যুগ ধরে এসব ধারণা এতটাই জেঁকে বসেছে যে অনেক অভিজ্ঞজনও তা সত্য বলে মনে করেন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, ভুল ধারণাগুলো শিশুদের ক্ষেত্রে ক্ষতিকর হয়ে ওঠে। মা-বাবার বাজে ধারণার ওপর ভিত্তি করে শিশুদের খাদ্যাভ্যাস গড়ে তোলেন। ফলে তাদের স্বাস্থ্য হুমকির মুখে পড়ে। এখানে জেনে নিন এমনই পাঁচটি ভুল ধারণার কথা।

১. চিনিপূর্ণ খাবার শিশুদের উদ্যমী করে তোলে : অনেক গবেষণায় প্রমাণ মিলেছে, শিশুদের উদ্যমী হয়ে ওঠা ও চিনির মধ্যে কোনো সম্পর্ক নেই। বরং বেশি চিনিতে শিশুদের স্থূলতা দেখা দেয়। কাজেই চিনিতে উল্টো উদ্যম হারানোর শঙ্কা রয়েছে। তা ছাড়া ঘুমের অভাব, অস্বাস্থ্যকর খাবার এবং আয়রনের অভাবে উদ্দীপনা চলে যায় বাচ্চাদের। তাই পুষ্টিকর ও শক্তিদায়ক খাবার দিতে হবে শিশুদের।

২. নতুন খাবার খেতে চায় না শিশুরা : এটা একটা ভুল ধারণা। বড়রাই বরং নতুন নতুন খাবারে আগ্রহ পায় না। কিন্তু ছোটদের কাছে সবই নতুন। তাই তারা নতুনে আগ্রহী থাকে। শিশুরা এসব স্বাদ গ্রহণ করতে চায়। এ কারণে তাদের নতুন খাবারে আগ্রহী করে তুলতে হয়।

৩. শিশুদের জন্য সেরা খাবার ওটমিল : এক থেকে তিন বছর বয়সীদের জন্য ওটমিল বেশ পুষ্টিকর। তবে অনেক শিশুর হজমে সমস্যা করতে পারে এই খাবার। তাই এটাই যে তাদের জন্য সেরা তা ভুল ধারণা।

৪. স্কুলে ভর্তির আগে খাবারে অ্যালার্জি দেখা দেয় : বিশেষজ্ঞদের মতে, শিশুরা বেড়ে ওঠার সময় কিছু খাবারে অ্যালার্জি দেখা দেয়। মোটামুটি তিন বছর বয়সে কিছু খাবারে অ্যালার্জি দেখা দিতে পারে। কিন্তু এটা অবধারিত নয়। যদি মনে হয় যে অ্যালার্জি দেখা দিচ্ছে, সে ক্ষেত্রে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করা ভালো।

৫. স্বাদ আলাদা হওয়ার কারণে শিশুসুলভ খাবার দিতে হয় শিশুদের : ছয় বছর বয়স পর্যন্ত শিশুদের কিছু খাবারের বিষয়ে পছন্দ তৈরি হয়। ছোটকাল থেকে যে খাবার দেওয়া হয় তাই খেতে চায় শিশুরা। যদি তাদের মিষ্টি খাবার দেওয়া হয়, সেই খাবারই তাদের আগ্রহী করবে। তবে নতুন খাবারেও যথেষ্ট মনোযোগ দেয় তারা। বড়দের খাবারও ধীরে ধীরে দিতে হয় তাদের। শিশু বলে যে সব সময় শিশুদের খাবার দিতে হবে এমন কোনো কথা নেই।

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া


মন্তব্য