kalerkantho


১৬ জেলায় সরকারি তথ্যসেবা দিতে ‘কল্যাণী’র যাত্রা

নাটোর প্রতিনিধি   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, দেশের অর্ধেক জনগোষ্ঠীই নারী। এই বিশাল নারীগোষ্ঠীকে জনশক্তিতে রূপান্তর করতে হবে। তাদের তথ্যপ্রযুক্তির সেবায় প্রশিক্ষণ দিতে হবে। গতকাল শনিবার নাটোর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে দেশের ১৬টি জেলায় প্রথমবারের মতো নারী পরিচালিত কল সেন্টার ‘কল্যাণী’র তথ্য ও জরুরি সেবা কার্যক্রম উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানস্থল থেকেই ১৬ জেলার জেলা প্রশাসকের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স করা হয়। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের আইসিটি বিভাগের সহযোগিতায় ডিনেটের উদ্যোগে এ সেবা চালু করা হচ্ছে।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে কল্যাণী বিশ্বের রোল মডেল হবে। কল্যাণীর নারীরা ইন্টারনেটের মাধ্যমে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে, আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে সুবিধাবঞ্চিত প্রতিটি পরিবারে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, যোগাযোগ ইত্যাদি বিষয় সংযুক্ত করবেন।

অনুষ্ঠানে নাটোরের জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুন, ডিনেটের নির্বাহী পরিচালক অনন্য রায়হান, নাটোর পৌরসভার মেয়র উমা চৌধুরী, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বনমালী ভৌমিক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে জেলার শংকর গোবিন্দ চৌধুরী স্টেডিয়াম থেকে কল্যাণীর সদস্যদের নিয়ে একটি শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, দেশের সুবিধাবঞ্চিত নারীদের গৃহস্থালি সামগ্রী থেকে প্রসূতি মায়ের চিকিৎসাসেবা, তথ্য, কৃষি এবং ডিজিটালসহ যাবতীয় সেবা প্রদান করবেন কল্যাণীর নারী কর্মীরা। এ লক্ষ্যে ২০২১ সালের মধ্যে দেশে ১০ হাজার কর্মী তৈরির পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ডিনেট এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে।


মন্তব্য