kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ভাড়া চাওয়ায় রিকশাচালককে গুলি

যুবলীগ নেতা গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



রাজধানীর মহাখালীতে বৃহস্পতিবার রাতে ভাড়া চাওয়ায় এক রিকশাচালককে গুলি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত যুবলীগ নেতার নাম ইউসুফ সরদার সোহেল ওরফে সুন্দরী সোহেল।

গতকাল শুক্রবার তাঁকে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গুলিবিদ্ধ রিকশাচালক কবির হোসেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

গুলিবিদ্ধ কবির হোসেন জানান, গত বৃহস্পতিবার রাতে গুলশান থেকে দুজন যাত্রী নিয়ে তিনি বনানীর ২ নম্বর রোডের মাথায় (আমতলী মোড়) যান। ভাড়া না দিয়ে রিকশা থেকে নেমে হাঁটা শুরু করেন যাত্রীরা। এ সময় ভাড়া চাইলে এক যাত্রী কবিরের পায়ে গুলি করে বীরদর্পে চলে যান। এ সময় চান মিয়া নামের পরিচিত এক ব্যক্তি তাঁকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে তিনি জানতে পারেন গুলি করা যাত্রীটি ছিলেন যুবলীগ নতা সুন্দরী সোহেল এবং তাঁর সঙ্গে ছিলেন শাহ আলম নামের এক ব্যক্তি। গতকাল শুক্রবার তাঁদের আসামি করে তিনি বনানী থানায় মামলা করেন।

থানা পুলিশ জানায়, অভিযোগ পাওয়ার পর পুলিশ গতকাল গুলশানের হোটেল আমারী থেকে অস্ত্রসহ সোহেলকে গ্রেপ্তার করে। তদন্তসংশ্লিষ্টরা বলছেন, সোহেলকে আদালতে হাজির করে রিমান্ডের আবেদন জানানো হবে। তাঁর সহযোগী শাহ আলমের বিরুদ্ধেও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের অভিযোগ রয়েছে। সুন্দরী সোহেল বনানী থানা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক এবং শাহ আলমও যুবলীগ নেতা। তাঁদের বিরুদ্ধে এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের অভিযোগ আছে।

বনানী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, সন্ত্রাসী সুন্দরী সোহেলকে তাঁর লাইসেন্স করা পিস্তলসহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সন্তোষজনক জবাব না পেলে আদালতে হাজির করে রিমান্ডের আবেদন জানানো হবে। অপর আসামি শাহ আলমকেও খোঁজা হচ্ছে।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানায়, সোহেলের বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ রয়েছে। বছর দুয়েক আগে বিদেশ থেকে দেশে ফিরে যুবলীগের রাজনীতি শুরু করেন সুন্দরী সোহেল। কিছুদিন আগে তিনি মহাখালীর এক ফল ব্যবসায়ী শ্রমিক লীগ নেতার দুই মেয়েকে তুলে নিয়ে এক দিন আটকে রেখে নির্যাতন করেন। কিন্তু ভয়ে মামলা করার সাহস পায়নি ভুক্তভোগী পরিবার। সম্প্রতি কড়াইল টিঅ্যান্ডটি কোরবানির পশুর হাট নিয়ে দ্বন্দ্বে সাবেক এক কমিশনারকে প্রকাশ্যে বন্দুক ঠেকিয়ে হুমকি দেন সোহেল। এক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি না করায় এলাকার বর্তমান কাউন্সিলর নাসিরের সামনে এক নেতাকে মারধর ও ফাঁকা গুলি করেন এই সোহেল। তাঁর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগও রয়েছে।


মন্তব্য