kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিটিআরসির নতুন সিদ্ধান্ত

৩জি তরঙ্গে ৪জি সেবাও দেওয়া যাবে

কাজী হাফিজ   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



৭০০ মেগাহার্জ ব্যান্ডের স্পেকট্রাম (তরঙ্গ) নির্ধারণ করে ৪জি (চতুর্থ প্রজন্ম) ও এলটিই (লং টার্ম এভল্যুশন) লাইসেন্স দেওয়ার প্রস্তুতির মধ্যেই বিটিআরসির নতুন সিদ্ধান্ত, ৩জির জন্য বরাদ্দ ২১০০ মেগাহার্জ ব্যান্ডের তরঙ্গ দিয়েও এ সেবা দেওয়া যাবে। তবে এর জন্য মোবাইল ফোন অপারেটরদের ৪জি লাইসেন্স নিতে হবে।

বিটিআরসির ১৯৯তম সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়েছে।  

মোবাইল ফোন অপারেটর রবি এ বিষয়ে গত ৩ মার্চ ‘রিকোয়েস্ট ফর ক্লারিফিকেশন ৪জি/এলটিই সার্ভিসেস আন্ডার ৩জি লাইসেন্সেস’ শিরোনামে বিটিআরসিকে চিঠি দেয়। এরপর গত জুনে বিটিআরসির ১৯৭তম সভায় লিগ্যাল ও লাইসেন্সিং বিভাগকে বলা হয় স্পেকট্রাম ম্যানেজমেন্ট এবং ইঞ্জিনিয়ারিং ও অপারেশনস বিভাগের মতামত নিয়ে এ বিষয়ে জানাতে। গত ১৬ আগস্ট ওই দুই বিভাগের মতামত বিটিআরসির সর্বশেষ ১৯৯তম সভায় উপস্থাপন করা হয়।

তাতে বলা হয়েছে, বর্তমান প্রেক্ষাপটে ৩জি লাইসেন্সের নীতিমালা অনুযায়ী এবং ইঞ্জিনিয়ারিং ও অপারেশনস—এ দুই বিভাগই মতামত দেয় যে ৩জি লাইসেন্সের নীতিমালা অনুসারে ২১০০ মেগাহার্জ ব্যান্ডের তরঙ্গে ৪জি/এলটিই সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে পৃথক কোনো লাইসেসেন্সের প্রয়োজন নেই। ৩জি লাইসেন্সপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলো ৩জির জন্য বরাদ্দ তরঙ্গে ৪জি/এলটিই সেবা দিতে পারবে। তবে ৪জি লাইসেন্স ছাড়া তাদের এই সেবা দেওয়ার সুযোগ নেই।

এর আগে বিষয়টি নিয়ে বিটিআরসির লিগ্যাল ও লাইসেন্সিং বিভাগের মতের সঙ্গে স্পেকট্রাম ম্যানেজমেন্ট এবং ইঞ্জিনিয়ারিং ও অপারেশনস বিভাগ পুরোপুরি একমত হতে পারেনি। বিষয়টি স্পষ্ট করতে বিটিআরসির কর্মকর্তাদের কেউ কেউ ৩জি লাইসেন্সের সংশ্লিষ্ট দফাটি সংশোধন করা প্রয়োজন বলে মত দেন। তবে বিটিআরসির সভায় সিদ্ধান্ত হয়, ৩জি লাইসেন্সের অধীনে কমিশন থেকে বরাদ্দ ২১০০ মেগাহার্জ তরঙ্গ ব্যান্ডে ৪জি/এলটিই সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে টেলিযোগাযোগ অপারেটরদের আলাদা লাইসেন্স নিতে হবে।


মন্তব্য