kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


টাকা তোলার চাপ ছিল ব্যাংকে

শেখ শাফায়াত হোসেন   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



টাকা তোলার চাপ ছিল ব্যাংকে

ঈদের আগে ব্যবসায়ীদের লেনদেনের সুবিধার্থে আরো তিন দিন কিছু ব্যাংক শাখা খোলা থাকলেও সামগ্রিক লেনদেনের সুযোগ বন্ধ হয়ে যায় গতকাল বৃহস্পতিবারের পর থেকে। এ জন্য ঈদের খরচ ও কোরবানির পশু কেনার জন্য প্রয়োজনীয় টাকা তুলতে ভিড় করেন অনেক গ্রাহক।

এ ছাড়া শ্রমিকদের বেতন-বোনাস দেওয়ার জন্যও গতকাল ব্যাংকগুলোতে টাকা তুলতে আসেন গার্মেন্ট মালিকরা। ঈদের আগে ব্যাংকের শেষ কার্যদিবসে গতকাল সকাল থেকেই রাজধানীর ব্যাংক শাখাগুলোতে লেনদেন করতে আসা গ্রাহকের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। এদিন টাকা তোলা এবং জমা দেওয়া দুটিই হয়েছে। তবে কোনো কোনো ব্যাংকে টাকা তোলার চাপই বেশি ছিল বলে জানিয়েছেন ব্যাংক কর্মকর্তারা।

মতিঝিল ও দিলকুশায় সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকের একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ব্যাংক বন্ধ হয়ে যাবে দেখে অনেক গ্রাহকই তাঁদের প্রয়োজনীয় লেনদেন সারতে এসেছেন। এক্সিম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. হায়দার আলী মিয়া জানান, নগদ টাকা তোলার চাপ অনেক বেশি ছিল। বিশেষ করে গার্মেন্ট মালিকরা তাঁদের শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন-বোনাস দেওয়ার জন্য অনেক টাকা তুলেছেন। আর এই চাপ মেটাতে গিয়ে আমাদের চারবার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে টাকা আনতে হয়েছে। শুধু আমরাই নই, অধিকাংশ ব্যাংককেই এভাবে গ্রাহকের চাহিদা মেটাতে হয়েছে। তিনি আরো বলেন, শনি ও রবিবার কিছু ব্যাংক শাখা খোলা থাকলেও তাতে সাধারণ গ্রাহকদের খুব একটা উপকার হবে না। গার্মেন্ট ব্যবসায়ীদের কিছু ঋণপত্রসংক্রান্ত কার্যক্রম সম্পন্ন করা যাবে।

সোনালী ব্যাংকের ঢাকাস্থ স্থানীয় কার্যালয়ের মহাব্যবস্থাপক ফণীন্দ্র ত্রিবেদী জানান, প্রতিবারের মতো এবারও ঈদের আগে লেনদেন বেড়ে গেছে। দীর্ঘ ছয় দিনের ছুটির কারণে অনেক গ্রাহক নগদ টাকা তুলে রাখছেন। এর ফলে ব্যাংক থেকে প্রচুর টাকা উত্তোলন হয়েছে। তাই লেনদেন হয়েছে স্বাভাবিক দিনের তুলনায় তিন থেকে চার গুণ।

আগামী শনি ও রবিবার পোশাক শিল্প এলাকার ব্যাংক শাখাগুলোকে এবং কাস্টমস সংশ্লিষ্ট শাখাগুলোকে শুক্র, শনি ও রবিবার খোলা রাখতে নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। তবে সামগ্রিকভাবে সব ব্যাংক আজ শুক্রবার থেকে আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। এই সময়ে নগদ টাকার চাহিদা মেটাতে সাধারণ গ্রাহকদের নির্ভর করতে হবে এটিএম বুথগুলোর ওপর। টানা ছুটিতে এটিএম বুথে পর্যাপ্ত টাকা থাকবে কি না তা নিয়ে উত্কণ্ঠা রয়েছে গ্রাহকদের মধ্যে। ব্যাংকগুলো যাতে ছুটির মধ্যে এটিএম বুথে পর্যাপ্ত পরিমাণে টাকা মজুদ রাখে সে বিষয়ে গত বুধবার নির্দেশনা দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।  


মন্তব্য