kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


জিয়া ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা

তদন্ত কর্মকর্তাকে ফের জেরার অনুমতি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হারুন-অর রশিদকে পুনরায় জেরা করার অনুমতি দিয়েছেন আপিল বিভাগ। একই সঙ্গে বিচারিক আদালতের অনুমতি সাপেক্ষে এ-সংক্রান্ত নথি (কেস ডকেট) খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা দেখতে পারবেন বলে আদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ গতকাল বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন। খালেদা জিয়ার আবেদন নিষ্পত্তি করে এ আদেশ দেওয়া হয়েছে।

আদালতে খালেদার পক্ষে আইনজীবী ছিলেন সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী, ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন ও ব্যারিস্টার রাগিব রউফ চৌধুরী। দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশিদ আলম খান।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় তদন্ত কর্মকর্তাকে নতুন করে জেরা করার জন্য গত ১৭ এপ্রিল আবেদন করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী। ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ আদালতের বিচারক আবু আহমেদ জমাদার তা খারিজ করে দেন। এরপর ওই আদেশের বিরুদ্ধে আবেদন করা হয় হাইকোর্টে। সঙ্গে মামলার কার্যক্রম স্থগিত চাওয়া হয়। হাইকোর্ট গত ১৫ মে এ আবেদন খারিজ করে দেন। হাইকোর্টের রায় স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করেন খালেদার আইনজীবীরা।

আপিল বিভাগের আদেশের পর দুদকের আইনজীবী খুরশিদ আলম খান সাংবাদিকদের বলেন, তিনটি প্রশ্নে তদন্ত কর্মকর্তাকে জেরা করতে পারবেন খালেদার আইনজীবীরা। একই দিন এ জেরা সম্পন্ন করতে আপিল বিভাগ বলে দিয়েছেন।

এই তিনটি প্রশ্ন হলো : ১. ট্রাস্ট অ্যাক্টের ২৩ ধারা মোতাবেক ট্রাস্টি বোর্ডের কোনো সম্পত্তি অপব্যবহার হলে বোর্ড অব ট্রাস্টি দায়ী কি না? ২. হলফকারী হিসেবে আপনি হলফ করে কী বলেছেন? ৩. আপনাকে দুদক থেকে ২০০৫ সালে প্রত্যাহার করা হয়েছে? তারপর থেকে আপনি কিভাবে কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন?


মন্তব্য