kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


জিয়ার পদক প্রত্যাহার

আজ ঢাকায়, কাল মহানগর ও জেলায় বিএনপির বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



আজ ঢাকায়, কাল মহানগর  ও জেলায় বিএনপির বিক্ষোভ

সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে জিয়াউর রহমানের স্বাধীনতা পদক জাতীয় জাদুঘর থেকে সরিয়ে ফেলেছে অভিযোগ তুলে এ সিদ্ধান্তের নিন্দা জানিয়েছে বিএনপি। এ ঘটনার প্রতিবাদে আজ শুক্রবার ঢাকায় প্রেস ক্লাবের সামনে ও আগামীকাল শনিবার দেশের সব মহানগর ও জেলা সদরে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে দলটি।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, ‘সরকারের এই সিদ্ধান্ত প্রতিহিংসাপরায়ণ, ঔদ্ধত্যপূর্ণ ও গণবিচ্ছিন্ন। এই সিদ্ধান্ত দেশের রাজনীতিতে বিভক্তি আরো বাড়াবে। রাজনীতিকে আরো সংকটময় করে তুলবে। ’

জিয়ার মরণোত্তর স্বাধীনতা পদক বাতিলের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘গতকাল (বুধবার) জাতীয় জাদুঘর থেকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের স্বাধীনতা পদক সরিয়ে ফেলেছে কর্তৃপক্ষ। আমরা এ বিষয়ে মন্ত্রিসভা কমিটিতে গৃহীত সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ এবং এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন থেকে বিরত থাকতে আহ্বান জানিয়ে ছিলাম। কিন্তু সরকার কর্ণপাত না করে গতকাল তা বাস্তবায়ন করেছে। ’

ফখরুল আরো বলেন, ‘১৯৭১ সালে পাকিস্তান সেনাবাহিনী যখন অসহায় নিরস্ত্র বাংলাদেশিদের নিশ্চিহ্ন করবার জন্য ঝাঁপিয়ে পড়েছিল, হত্যা করছিল নির্বিচারে, যখন রাজনৈতিক নেতৃত্ব সঠিক দিকনির্দেশনা দিতে ব্যর্থ হয়েছিল তখন শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান চট্টগ্রাম কালুরঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়ে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়বার নির্দেশ দিয়েছিলেন এবং অনুপ্রাণিত করেছিলেন সমগ্র জাতিকে। সেই জিয়াউর রহমানের স্বাধীনতার পদক যারা কেড়ে নিচ্ছে তারা স্বাধীনতাকে অস্বীকার করছে। ’

ফখরুল বলেন, ‘এই ধরনের কার্যকলাপ হীন রাজনৈতিক প্রতিহিংসাপ্রসূত। এই সিদ্ধান্তে শুধু জিয়াউর রহমানকে হেয় করা হচ্ছে না, বরং স্বাধীনতার সংগ্রামে যাঁরা অসাধারণ অবদান রেখেছেন তাঁদের সকলের জন্য এটা চরম অবমাননাকর। সরকার এই ধরনের সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রমাণ করল যে সত্যিকারের মুক্তিযুদ্ধের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক ছিল না। এই ধরনের গণবিরোধী, বাংলাদেশের অস্তিত্ববিরোধী সিদ্ধান্ত দেশকে আরো বিভক্ত করবে। ’

‘জিয়া ও বাংলাদেশ অবিচ্ছেদ্য’ মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘স্বাধীনতাযুদ্ধে যারা প্রেসিডেন্ট জিয়ার অবদানকে অস্বীকার করে, শুধুমাত্র আদালতের রায়ের ভিত্তিতে যারা পদক সরিয়ে ফেলে, মাজার (জিয়ার কবর) সরিয়ে ফেলতে চায়, তারাই মূলত স্বাধীনতাবিরোধী। ’ জিয়ার স্বাধীনতা পদক সরিয়ে ফেলার প্রতিবাদে ঢাকা মহানগর বিএনপির উদ্যোগে আজ শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এবং আগামীকাল শনিবার সারা দেশে জেলা সদর ও মহানগরগুলোয় বিএনপির উদ্যোগে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে বলে ঘোষণা দেন ফখরুল।  


মন্তব্য