kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দেশে চার লক্ষাধিক শিশু বাস্তুচ্যুত

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



বিশ্বে প্রায় পাঁচ কোটি শিশু আন্তর্জাতিকভাবে ‘বাস্তুচ্যুত’ হয়ে পড়েছে। যুদ্ধ, সহিংসতা কিংবা নির্যাতনের কারণে তারা নিজ দেশ থেকে বাস্তুচ্যুত হতে বাধ্য হয়েছে।

এ ছাড়া বিশ্বে অভ্যন্তরীণ বাস্তুচ্যুত শিশুর সংখ্যা এক কোটি ৯০ লাখ। বাংলাদেশে অভ্যন্তরীণ বাস্তুচ্যুত শিশুর সংখ্যা চার লাখ ২৬ হাজার। গতকাল ইউনিসেফ এ তথ্য জানিয়েছে।

ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক অ্যান্টনি লেক এক বিবৃতিতে বলেন, ‘সমুদ্রে ডুবে যাওয়ার পর তীরে ভেসে আসা আয়লান কুর্দির ছোট্ট দেহ কিংবা অ্যাম্বুল্যান্সে বসানোর পর ওমরান দাকনিসের নির্বাক ও রক্তাক্ত মুখের ছবি দেখে বিশ্বব্যাপী মানুষ মর্মাহত হয়েছিল। কিন্তু প্রতিটি ছবি, প্রতিটি ছেলে বা মেয়ে লাখ লাখ বিপদগ্রস্ত শিশুকে তুলে ধরছে। ’

ইউনিসেফ জানায়, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে পাওয়া উপাত্ত থেকে জানা যায়, কেবল সহিংসতা ও সংঘাতের কারণেই বিশ্বের দুই কোটি ৮০ লাখ শিশু বাস্তুচ্যুত হয়ে পড়েছে, যাদের মধ্যে এক কোটি শরণার্থী শিশু রয়েছে। এ ছাড়া আরো ১০ লাখ শিশু রাজনৈতিক আশ্রয়প্রার্থী, যাদের শরণার্থী হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ার বিষয়টি স্থগিত রয়েছে। এ ছাড়া মানবিক সহায়তা ও মৌলিক সেবা থেকে বঞ্চিত হওয়ার কারণে প্রায় এক কোটি ৭০ লাখ শিশু তাদের নিজ দেশে গৃহহীন হয়ে পড়েছে। আরো প্রায় দুই কোটি শিশু সংঘবদ্ধ সহিংসতাসহ বিভিন্ন কারণে নিজ দেশ ছেড়েছে।

২০১৫ সালের বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে এ প্রতিবেদন তৈরি করে ইউনিসেফ। এই হিসেবে গত বছর বাংলাদেশে অভ্যন্তরীণ বাস্তুচ্যুত শিশুর সংখ্যা চার লাখ ২৬ হাজার। সংস্থাটির মতে, ২০১৫ সালে জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থার তত্ত্বাবধানে ৪৫ শতাংশ শরণার্থী শিশুই এসেছে সিরিয়া ও আফগানিস্তান থেকে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বিভিন্ন দেশের সীমান্তে প্রতিদিনই বাস্তুচ্যুত শিশুর সংখ্যা বাড়ছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, অনেক বাস্তুচ্যুত শিশু উপযুক্ত কাগজপত্রের আটকাবস্থার শিকার হচ্ছে। বাস্তুচ্যুত হওয়ার কারণে অনেক শিশু নির্যাতনের শিকারও হচ্ছে। ইউনিসেফ বাস্তুচ্যুত, নির্যাতনের শিকার ও আশ্রয়প্রার্থী এসব শিশুর আটকাবস্থার অবসানের আহ্বান জানায়। সূত্র : এএফপি ও ইউনিসেফ ওয়েবসাইট।


মন্তব্য