kalerkantho


রাজধানীতে ২৪ হাট

সময়ের আগেই হাটে পশু

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



সময়ের আগেই হাটে পশু

নির্ধারিত সময়ের আগেই রাজধানীর কোরবানির হাটে পশু উঠতে শুরু করেছে। নিময় অনুযায়ী আজ ৭ সেপ্টেম্বর থেকে পশু আসার কথা।

আর বিক্রি শুরু হবে ৯ সেপ্টেম্বর। কিন্তু বেশির ভাগ হাটেই শত শত গরু এসে গেছে। যদিও কোনো হাটে এখনো ক্রেতার দেখা নেই।

গতকাল মঙ্গলবার একাধিক হাটে গিয়ে দেখা যায় সারি সারি গরু বেঁধে রাখা হয়েছে। সকাল সাড়ে ১১টায় হাজারীবাগ-জিগাতলা সড়কে দেখা গেল বাঁশ-খুঁটি পুঁতে শতাধিক গরু বেঁধে রেখেছে। অফিস-স্কুল খোলা থাকায় ওই সড়ক দিয়ে চলাচলকারী কর্মব্যস্ত নগরবাসীকে অন্তহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। ইজারাদারের লোকজন সড়কটিতে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করছে। শুধু হাজারীবাগ পশুর হাট নয়, এ চিত্র রাজধানীর অস্থায়ী বেশির ভাগ হাটেরই।

জানতে চাইলে ডিএনসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম জানান, কোনো ইজারাদার ইজারার শর্ত ভাঙলে প্রচলিত আইনে তাদের শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

এ জন্য হাটগুলোতে নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।

জানা যায়, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় এবার অস্থায়ী কোরবানি পশুর হাট বসছে ২২টি। এর বাইরে দেশের সর্ববৃহৎ গাবতলী পশুর হাট এবং নতুন সিটি করপোরেশনভুক্ত এলাকায় সারুলিয়ার অস্থায়ী হাটে পশুর ব্যাপক সরবরাহ থাকবে।

ইজারাদার ও পশু ব্যবসায়ীরা জানিয়েছে, কোরবানি উপলক্ষে রাজধানীর হাটগুলোতে পশু ওঠানোর সব প্রস্তুতি তাদের রয়েছে। ইতিমধ্যে কিছু পশু এসে গেছে। আসার প্রক্রিয়ায় আছে অনেক পশু। বাকি পশু আগামী ৯-১০ তারিখের মধ্যে উঠে যাবে। তাদের মতে, এবারের কোরবানির হাটে ৮০ শতাংশ থাকবে দেশি গরু। রাজধানীর অস্থায়ী কয়েকটি পশুর হাট ঘুরে জানা গেছে, পশু দেখতে নগরবাসী এলেও বিক্রি এখনো শুরু হয়নি। সম্ভাব্য দাম কেমন হবে—এসব জেনে নেওয়ার চেষ্টা করছে অনেকে।

খোঁজখবরে জানা যায়, লালবাগ হাজী দেলোয়ার হোসেন খেলার মাঠে ভেতরে পশু রাখার প্রস্তুতি চললেও বেড়িবাঁধ সড়কের একাংশে পশু উঠিয়েছে ব্যবসায়ীরা। ১০ তারিখের মধ্যে ওই হাট পশুতে ভরে উঠবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। রামপুরার মেরাদিয়া বাজার হাটেও দুই দিন আগে থেকে পশু আসা শুরু করেছে। গতকাল সকালে কয়েকটি ট্রাকভর্তি পশু নামানো হয়েছে এ হাটে। মেরুল বাড্ডা আফতাবনগর হাটেও বেশ কিছু পশু এসেছে। এ হাটের মূল ফটকে নানা রঙের আলোকসজ্জা করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে ডিএসসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা খালিদ আহমেদ জানান, নিয়ম অনুযায়ী নির্ধারিত সময় ও স্থানের বাইরে পশু রাখার সুযোগ নেই। তবে ঈদ একটি বড় ধর্মীয় উৎসব। জনসাধারণের সুবিধার্থে অনেক নিয়ম মানতে বাধ্য করা যায় না। এর পরও আমরা প্রতিবছরের মতো এবারও কোরবানির হাটে ভ্রাম্যমাণ আদালত ও ভেটেরিনারি টিম মাঠে থাকবে।


মন্তব্য