kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ঢাকায় পুলিশের গুলিতে নিহত ‘ছিনতাইকারী’

দুজন গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



রাজধানীর ধানমণ্ডি এলাকায় পুলিশের গুলিতে সন্দেহভাজন এক ছিনতাইকারী নিহত হয়েছেন। গুলিতে আহত হয়েছেন আরো একজন।

গতকাল মঙ্গলবার ভোরে ধানমণ্ডির ৩ নম্বর রোডে এ ঘটনা ঘটে। ‘এ চক্রের’ দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। নিহতের নাম সাগর (২৬)। তিনি পেশাদার ছিনতাইকারী বলে দাবি করছে পুলিশ।

শাহবাগ থানার ওসি আবু বকর সিদ্দিক জানান, গতকাল ভোর ৬টার দিকে পল্টন এলাকায় একটি সাদা রঙের টয়োটা গাড়িকে ঘোরাঘুরি করতে দেখে টহল পুলিশ। এ সময় গাড়িটি থামাতে দিলে চালক না থামিয়ে দ্রুত চলে যাওয়ার চেষ্টা করে। তখন পিছু নেয় পুলিশ। এরপর কলাবাগান ও নিউ মার্কেট এলাকা ঘুরে ধানমণ্ডি ৩ নম্বর রোডে পৌঁছানোর পর ছিনতাইকারীদের গাড়ির পথ আটকে দেয় পুলিশের গাড়ি। তখন ছিনতাইকারীরা দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশ গুলি করে।

আবু বকর সিদ্দিক জানান, পরে গুলিবিদ্ধ সাগর ও তাঁর সহযোগী হযরত আলীকে (২৮) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে সাগরকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ আবুল বাশার নামে আরেক ছিনতাইকারীকে আটক করে। বাশার ছিনতাইয়ের অভিযোগে আগেও শাহবাগ পুলিশের হাতে ধরা পড়েছিল। জামিনে বেরিয়ে আবার অপরাধে জড়িয়ে পড়ে।  

ঢাকা মহানগর পুলিশের রমনা বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) মারুফ হোসেন সরদার বলেন, এই চক্রটি বেশ কিছুদিন ধরে গাড়িতে ঘুরে ঘুরে বিভিন্ন যাত্রীর ব্যাগ ছিনতাই করে আসছিল। গতকাল ভোরেও ইডেন কলেজের এক ছাত্রী রিকশায় করে কল্যাণপুরে যাওয়ার সময় ধানমণ্ডি এলাকায় তাদের শিকার হন। ছিনতাইকারীদের কাছ থেকে উদ্ধার হওয়া ওই রকম একটি গাড়ি থেকেই তাঁর ব্যাগ ছিনিয়ে নেওয়া হয় বলে পুলিশ জানতে পেরেছে। ছিনতাইকারীদের গাড়ির ভেতরে থাকা চারটি মোবাইল ফোনসেট, কয়েকটি ব্যাগ ও ছুরি-চাপাতি উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ ও ঢামেক সূত্র জানায়, সাগরের বুকে ও হযরত আলীর পায়ে গুলি লাগে। সাগরের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে। তাঁর গ্রামের বাড়ি ফরিদপুর জানা গেলেও বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি।


মন্তব্য