kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


রিশার হত্যাকারীকে ধরিয়ে দেওয়া তিনজন পুরস্কৃত

নীলফামারী প্রতিনিধি   

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



রিশার হত্যাকারীকে ধরিয়ে দেওয়া তিনজন পুরস্কৃত

রিশা হত্যা মামলার আসামি ওবায়দুলকে ধরিয়ে দেওয়া ব্যক্তি দুলালের হাতে গতকাল পুরস্কার তুলে দেন নীলফামারীর পুলিশ সুপার। ছবি : কালের কণ্ঠ

রাজধানীর উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী সুরাইয়া আক্তার রিশার (১৫) হত্যাকারী ওবায়দুল হককে ধরিয়ে দেওয়ায় তিনজনকে পুরস্কৃত করেছে গাইবান্ধা জেলা পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার জেলার ডোমার থানা চত্বরে ‘ওপেন হাউস ডে’ ও কমিউনিটি পুলিশিং সভায় তাঁদের প্রত্যেককে পাঁচ হাজার টাকা করে পুরস্কার দেওয়া হয়।

পুরস্কারপ্রাপ্ত তিনজন হলেন ডোমারের মাংস ব্যবসায়ী দুলাল হোসেন, ইজিবাইকচালক ইসমাইল হোসেন ও সোনারায় ইউপি সদস্য শাহজাহান আলী। তাঁদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন পুলিশ সুপার জাকির হোসেন খান।

রিশার হত্যাকারী ওবায়দুল হককে ধরিয়ে দেওয়ার জন্য দুলাল হোসেনকে পুরস্কৃত করার দাবি ওঠে সোশ্যাল মিডিয়া ও বিভিন্ন গণমাধ্যমে। অনেকেই প্রশংসা করেন দুলালের ওই ভালো কাজের। বিষয়টি জেলা পুলিশ গুরুত্ব দিয়ে দেখে এবং দুলাল ও অন্যদের পুরস্কৃত করার সিদ্ধান্ত নেয়।

পুলিশের এমন পুরস্কার পেয়ে দুলাল বলেন, ‘এখন প্রতিদিন অন্তত একটি করে ভালো কাজ করার ইচ্ছা জাগছে আমার। স্কুল ছাত্রী রিশার খুনি ওবায়দুলকে ধরিয়ে দেওয়ার সময় ভাবতে পারিনি আমি প্রশংসিত হব, মানুষের কাছে এত সম্মান পাব। সবার প্রশংসা আরো ভালো কাজ করার অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে আমার। ’ তিনি বলেন, ‘প্রতিদিন অন্তত একটি করে ভালো কাজ করার ইচ্ছা জাগছে আমার। ’

গত ৩১ আগস্ট সকালে দুলাল, ইসমাইল ও শাহজাহান নীলফামারীর সোনারায় বাজার থেকে রিশা হত্যা মামলার পলাতক আসামি ওবায়দুলকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন। তাঁরা ওই বাজারে ওবায়দুলকে ঘোরাফেরা করতে দেখে সন্দেহ হলে পুলিশের সরবরাহ করা ছবির সঙ্গে মিল পেয়ে তাকে আটক করে। এরপর পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে ঢাকায় নেয়।


মন্তব্য