kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


গাড়ি ভাঙচুর ও হত্যাচেষ্টা

খালেদা জিয়াসহ ২৭ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট গ্রহণ

আদালত প্রতিবেদক   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



গাড়ি ভাঙচুর ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে রাজধানীর দারুস সালাম থানায় দায়ের হওয়া মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ ২৭ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) গ্রহণ করেছেন আদালত। মামলায় পলাতক থাকা ২৪ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

গতকাল সোমবার ঢাকার মহানগর হাকিম এমদাদুল হক এ আদেশ দেন। একই সঙ্গে আগামী ২০ অক্টোবর পরোয়ানা তামিলসংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য করেছেন আদালত।  

মামলার অভিযোগপত্র গ্রহণসংক্রান্ত আদেশের জন্য ধার্য তারিখে খালেদা জিয়ার পক্ষে আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া হাজিরা দেন। বিএনপির সাবেক যুগ্ম মহাসচিব আমান উল্লাহ আমান ও কামাল হোসেন জামিনে থেকে আদালতে হাজির ছিলেন।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এম কে আনোয়ার, ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি হাবিবুন নবী খান সোহেল, সাধারণ সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপুু, মানবাধিকারবিষয়ক সম্পাদিকা সৈয়দা আসিফা আশরাফি পাপিয়া, বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেসসচিব মারুফ কামাল খান সোহেলসহ ২৪ জন আদালতে হাজির না থাকায় তাঁদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

গত ২৯ জুন খালেদা জিয়াসহ ২৬ জনকে পলাতক দেখিয়ে ২৭ জনের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪৩৫/৩০৭/১০৯/৩৪ ধারায় চার্জশিট দেয় পুলিশ। পরে ১০ আগস্ট খালেদা জিয়া এই মামলায় আদালতে হাজির হয়ে আত্মসমর্পণ করে জামিন নেন। চার্জশিটে খালেদা জিয়াকে নির্দেশদাতা হিসেবে আসামি করা হয়েছে।

গত বছরের ৫ জানুয়ারি বর্তমান সরকারের এক বছর পূর্তির দিন থেকে সরকার পতনের লক্ষ্যে লাগাতার অবরোধের ডাক দেয় বিএনপি। এরপর ওই বছরের ৩ মার্চ রাজধানীর গাবতলী বাস টার্মিনালের কাছে যাত্রীদের হত্যার উদ্দেশ্যে গাড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটে, সেই ঘটনায়ই এ মামলা দায়ের করা হয়।  

মামলায় বলা হয়, দেশকে অস্থিতিশীল করে বৈধ সরকারকে উত্খাতের পরিকল্পনার অংশ হিসেবে আসামিরা পরস্পরের যোগসাজশে দারুস সালাম থানা এলাকার পূর্ব-দক্ষিণ মাঠের মধ্যে ঢাকা মেট্রো-জ-১১-২৮৬৯ নম্বরের একটি মিনিবাসে থাকা যাত্রীদের হত্যার উদ্দেশ্যে আগুন ধরিয়ে দেয়। ওই থানার উপপরিদর্শক শাহ আলম বাদী হয়ে মামলাটি করেন।


মন্তব্য