kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দুর্নীতির পৃথক মামলা

জনপ্রশাসন উপসচিব উপজেলা চেয়ারম্যান ও অডিটর গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব ড. মোহাম্মদ আমিন, পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. মজিবুর রহমান ও কুমিল্লা জেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয়ের অডিটর আবদুল বারেককে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল সোমবার দুর্নীতির পৃথক মামলায় তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়।

দুদকের উপপরিচালক মো. আখতার হামিদ জানান, গতকাল সকালে রাজধানীর মগবাজারের নিউ সার্কুলার রোডের নিজ বাসা থেকে মোহাম্মদ আমিনকে গ্রেপ্তার করে দুদক কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়। পরে আদালতে হাজির করলে ঢাকার মহানগর হাকিম মেহের নিগার সূচনা তাঁকে কারাগারে পাঠান।

দুদকের উপপরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য জানান, বর্তমানে মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) মোহাম্মদ আমিনের বিরুদ্ধে ৪৮ লাখ ৬৭ হাজার টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। অবৈধ সম্পদ অর্জন ও তথ্য গোপনের অভিযোগে গত ২০ জুলাই তাঁর বিরুদ্ধে রমনা থানায় মামলা হয়।

প্রণব কুমার ভট্টাচার্য জানান, দুর্নীতির মামলায় ঢাকা সিটি করপোরেশন অঞ্চল-১-এর সাবেক সহকারী প্রকৌশলী ও বর্তমানে পটুয়াখালী উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মজিবুর রহমানকে গতকাল সকালে মগবাজার থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পরে তাঁকে আদালতে হাজির করলে ঢাকার মহানগর হাকিম মেহের নিগার সূচনা তাঁকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

ঢাকা সিটি করপোরেশনে কর্মরত অবস্থায় দয়াগঞ্জ সুইপার কলোনি ‘খ’ এর নির্মাণকাজে ক্ষমতার অপব্যবহার ও দুর্নীতির মাধ্যমে এক কোটি ৪২ লাখ টাকা আত্মসাতের মামলায় মজিবুর রহমানকে কারাগারে পাঠানো হয়। গত ১৩ জুন তাঁর বিরুদ্ধে গেণ্ডারিয়া থানায় মামলা করে দুদক। এর আগে একই মামলায় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মেজবাউল করিম গ্রেপ্তার হন।

অন্যদিকে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পেনশনের ১৬ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে কুমিল্লা জেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয়ের অডিটর আবদুল বারেককে গতকাল দুপুরে তাঁর কার্যালয়ে গ্রেপ্তার করেছে দুদক।

কুমিল্লা দুদকের উপপরিচালক কালাম আজাদ জানান, আবদুল বারেক ২০০৫ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা হিসাবরক্ষণ অডিটর হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ওই সময় পেনশনের ১৬ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে গত বছরের অক্টোবরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানায় তাঁকেসহ ২২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। এর আগে দুদক ওই মামলার আরো দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারের পর কোতোয়ালি থানায় সোপর্দ করা আবদুল বারেককে আজ মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হবে বলে জানান দুদকের এই কর্মকর্তা।


মন্তব্য