kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বাংলাদেশে পাচার হওয়া তিন কিশোরীকে ফেরত

নিজস্ব প্রতিবেদক, কলকাতা   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



বাংলাদেশে পাচার হওয়া তিন ভারতীয় কিশোরীকে এক বছর পর ফিরে পেয়েছে তাদের পরিবার। গতকাল সোমবার সকালে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের পেট্রাপোলে বাংলাদেশ সরকারের প্রতিনিধিরা পরিবারের হাতে তাদের তুলে দেন।

জানা যায়, ভারতীয় নারী পাচারকারীর খপ্পরে পড়ে সীমান্তবর্তী জেলা উত্তর চব্বিশ পরগনার হাবড়া দিয়ে তিন কিশোরী চলে গিয়েছিল বাংলাদেশে। এরপর বিক্রি হওয়ার আগে বাংলাদেশ পুলিশের হাতে উদ্ধার হয় তারা। এরপর ঢাকার একটি হোমে তাদের রাখা হয়। পরে ‘সংলাপ’ নামের কলকাতার একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ভারত ও বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করে। এরপর সোমবার সকালে ওই তিন কিশোরীকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

কিশোরীদের পরিবারের অভিযোগ, গত বছর আগস্ট মাসে হাবড়ার বাউগাছি ও জয়গাছি এলাকার ওই তিন স্কুল ছাত্রীকে ভুলিয়ে সীমান্ত পার করে নিয়ে যায় ভারতীয় পাচারকারীরা। এরপর বাংলাদেশের খুলনায় তাদের বিক্রি করার ছক করা হয়েছিল। কিন্তু পুলিশ এ ঘটনা টের পেয়ে সোনাডাঙ্গা এলাকা থেকে তাদের উদ্ধার করে।

এক কিশোরীর মা জানান, মেয়েকে পাওয়ার আশাই ছেড়ে দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু বাংলাদেশ থেকে ফোন করে তাঁকে জানানো হয়েছিল, তাঁদের মেয়ে ভালো আছে। আরেক কিশোরীর মা বলেন, ‘কর্মসূত্রে বাইরে যেতে হয় রোজ। গত বছর একদিন হাঠাৎ স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হয়ে যায় মেয়ে। এরপর বহু খোঁজ করেও পাইনি। এরপর হঠাৎ বাংলাদেশ সরকারের তরফ থেকে খবর আসে, আমার মেয়ে ঢাকার একটি হোমে আছে এবং ভালো আছে। আমি বাংলাদেশ সরকার এবং কলকাতার সংলাপের কাছে কৃতজ্ঞ। ’

উত্তর চব্বিশ পরগনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অভিজিৎ মুখার্জি বলেন, ‘গত বছর এই সময় তিনটি মেয়েকে অপহরণের মামলা রেকর্ড হয়েছিল। সোমবার তাদের ফেরত পাওয়া গেছে। বাংলাদেশ সরকার এবং ভারত সরকারের উদ্যোগে কলকাতার সংলাপ বলে একটি সংস্থা খুবই ইতিবাচক ভূমিকা পালন করেছে। ’


মন্তব্য