kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দশ ট্রাক অস্ত্র মামলা

আকাশকে ফেনী পুলিশের কাছে হস্তান্তর

ফেনী প্রতিনিধি   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



চট্টগ্রামে দশ ট্রাক অস্ত্র আটকের আলোচিত ঘটনায় করা মামলার আসামি ছাত্রশিবিরের সাবেক ক্যাডার পেয়ার আহমেদ আকাশকে ফেনী পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুরে ইমিগ্রেশন পুলিশ ফেনীর দাগনভূঞা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাইফুল ইসলামের কাছে তাঁকে হস্তান্তর করা হয়।

এসআই সাইফুল কালের কণ্ঠকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। আকাশের বিরুদ্ধে দাগনভূঞা থানার অস্ত্র মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে।

এর আগে শুক্রবার রাতে মালয়েশিয়া পুলিশ আকাশকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর করে। সম্প্রতি তিনি মালয়েশিয়ায় একে-৪৭ রাইফেলসহ পুলিশের হাতে ধরা পড়েন।

আকাশ দাগনভূঞা উপজেলার পূর্বচন্দ্রপুর ইউনিয়নের নয়নপুর গ্রামের বাসিন্দা।

মালয়েশিয়ায় আকাশের ব্যবসায়িক অংশীদার মো. ফজলুল আমীন জাভেদ মোবাইল ফোনে জানান, গত ১৯ আগস্ট মালয়েশিয়ার পুচং এলাকার একটি বাসা থেকে আকাশকে গ্রেপ্তার করে সে দেশের পুলিশ। এর আগে ২০১৪ সালের ১৫ ডিসেম্বর সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে তাঁকে মালয়েশিয়া পুলিশ একবার আটক করেছিল।

আটক ১০ ট্রাক অস্ত্র থেকে খোয়া যাওয়া একে-৪৭ রাইফেল বিক্রি করার সময় ২০০৫ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর ফেনীতে আকাশসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। পরে এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

ওই সময় জিজ্ঞাসাবাদে আকাশ জানিয়েছিলেন, পুলিশের সার্জেন্ট আলাউদ্দিন ও সার্জেন্ট হেলাল উদ্দিনের সহায়তায় বিভিন্ন সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর কাছে তিনি অস্ত্রগুলো বিক্রি করেন। এরপর ২০০৭ সালে ক্ষমতার পালাবদলের সময় আকাশ জামিন পেয়ে পালিয়ে মালয়েশিয়া চলে যান। ইন্টারপোলের হুলিয়া মাথায় নিয়ে সেখানেও তিনি জামায়াতের রাজনীতিতে যুক্ত হন।

পেয়ার আহমেদ আকাশ ফেনী শহরে জামায়াত পরিচালিত শাহীন একাডেমি স্কুল থেকে ১৯৯৩ সালে মাধ্যমিক (এসএসসি) পাস করেন। স্কুলে পড়ার সময়ই আকাশ তাঁর দুলাভাই জেলা জামায়াতের নায়েবে আমির আবু ইউসুফের হাত ধরে জামায়াত-শিবিরের রাজনীতিতে যুক্ত হন। পরে অস্ত্র কারবারে জড়িয়ে পড়েন তিনি।


মন্তব্য