kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


অনলাইনে মিলছে গরু-কসাই

জামাল হোসেইন   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



উত্তরার হাজি ক্যাম্পের পাশে থাকেন অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা নুরুল হক। প্রতিবছর শখ করে পাঁচ ছেলেকে নিয়ে হাটে গিয়ে কোরবানির পশু কেনেন।

এটা ওই পরিবারের ৩০ বছরের রেওয়াজ। এখন নুরুল হকের বয়স ৭০ পেরিয়েছে। ছেলেরাও ব্যস্ত যাঁর যাঁর কর্মজীবন নিয়ে। হাটে যাওয়ার আর সুযোগ কই? এমন পরিস্থিতিতে নতুন উপায় খুঁজে নিয়েছেন পরিবারের ছোট ছেলে শামসুল আলম। এবার অনলাইনেই কেনাকাটা সারবেন বলে ঠিক করেছেন। শুধু তা-ই নয়, অনলাইনে পাওয়া যাচ্ছে কসাইও।

দল বেঁধে গরু কিনতে যাওয়াটা আনন্দদায়ক হলেও এতে হয়রানিও কম নয়। ঘটে নানা বিপত্তি। আবার কয়েক দিন বাড়িতে গরু লালনপালনের ঝক্কিও মেলা। এসব ঝামেলা থেকে ক্রেতাদের মুক্তি দিতে এগিয়ে এসেছে কয়েকটি ই-কমার্স সাইট। অনলাইনে বুকিং দিয়ে কিছু অর্থ অগ্রিম পরিশোধ করলে নির্দিষ্ট সময়ে বাড়িতে পৌঁছে যাবে গরু। এরই মধ্যে প্রতিষ্ঠানগুলো অনলাইনে কোরবানির পশু কেনাবেচার কাজ শুরু করেছে। এর মধ্যে কয়েকটি কম্পানি সরাসরি কেনাবেচার সঙ্গে জড়িত। আবার কোনো কোনো প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটে শুধু গরু কেনাবেচার বিজ্ঞাপন প্রকাশ করা হচ্ছে। কেনাবেচার প্রক্রিয়া সারতে হবে বিক্রেতা ও ক্রেতাকেই।

আমারদেশ ই-শপ নামের একটি প্রতিষ্ঠান অন্য পণ্যের পাশাপাশি এখন গরু বেচাকেনা শুরু করেছে। তাদের ওয়েবসাইটে বিভিন্ন আকারের গরুর ছবিসহ দাম দেওয়া আছে। http://amardesheshop.com/qurbani ঢুকলেই দেখা যাবে নানা রং আর আকারের গরুর ছবি, কোড নম্বর, দাম এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে ভিডিও। এই সাইবার হাটে গরু পাওয়া যাবে ৩৫ হাজার থেকে দেড় লাখ টাকার মধ্যে। পছন্দ হয়ে গেলে অনলাইনে বুকিং দিয়ে দিতে পারেন। ব্র্যাক ও ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের বি-ক্যাশ, ই-ক্যাশ অথবা ব্যাংক ড্রাফটের মাধ্যমে মূল্য পরিশোধ করা যাবে। দেশের বাইরে থেকেও করা যাবে কেনাকাটা। প্রতিষ্ঠানটির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা আতাউর রহমান বলেন, ‘আমরা গ্রাহকের চাহিদা অনুযায়ী তাদের বাড়িতে গরু পৌঁছে দিচ্ছি। আর এ জন্য আড়াই থেকে তিন হাজার টাকা সার্ভিস চার্জ নিচ্ছি। কোনো মধ্যস্থতাকারীর মাধ্যমে নয়, আমরা কৃষক বা গৃহস্তকে সরাসরি বাজার সুবিধা দিতে চাই। ক্রেতার সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করিয়ে দিতে চাই, যাতে দুই পক্ষই ন্যায্যমূল্য পায়। ’

আমারদেশ ই-শপ ক্লিকবিডি লিমিটেড নামের একটি অনলাইনভিত্তিক প্রতিষ্ঠান তাদের ওয়েবসাইটে শুধু গরু বিক্রির বিজ্ঞাপন প্রকাশ করছে। মূলত বিক্রেতাই বিজ্ঞাপন দেন। এর জন্য নির্দিষ্ট মাসুল নেওয়া হয়। www.clickbd.com -এ গরু ও উট বিক্রির বিজ্ঞাপন রয়েছে। অনলাইনে বেচাকেনার অন্যতম পোর্টাল www.bikroy.com -এ কোরবানির পশু বেচাকেনা শুরু হয়েছে। এ ছাড়া সেলবাজারের (www.cellbazzar.com) ওয়েবসাইটেও সুযোগ রয়েছে কোরবানির পশু কেনার। ফেসবুকেও চলছে বেচাকেনা| https://www.facebook.com/graceagro- এই ঠিকানায় গেলে গরুর ছবি, দাম সব দেখতে পাওয়া যাবে।

বিক্রয় ডটকমের মার্কেটিং ডিরেক্টর মিশা আলী জানান, অনলাইনে গরু বিক্রি বেশ জমে উঠেছে। ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী বিক্রেতার সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগের ব্যবস্থাও রয়েছে তাঁদের প্রতিষ্ঠানে। তিনি বলেন, ‘এ বছর থেকে আমরা কসাই সার্ভিসও দিচ্ছি। অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে প্রতি হাজারে দেড় শ, দুই শ এবং আড়াই শ টাকা হিসেবে চার্জ পড়বে। ক্রেতাদের বাসায় গরু পৌঁছে দেওয়ার সার্ভিস আমাদের আগে থেকেই আছে। এ ক্ষেত্রে প্রতি হাজারে ২০০ টাকা হারে সার্ভিস চার্জ নিচ্ছি। ’ তিনি আরো বলেন, ‘এ বছর ৭০ শতাংশ মূল্য ছাড়ে আমরা তিনটি গরু মধ্যম আয়ের পরিবারকে উপহার দিচ্ছি। মানুষের যাতে এই সাইটের প্রতি আকর্ষণ বাড়ে এ চিন্তা থেকেই এমন সিদ্ধান্ত। ’

জসিম উদ্দিন নামের এক ক্রেতা জানান, গত বছর তিনি গরু কিনেছেন অনলাইনে। এবারও কিনতে চান। তিনি আরো বলেন, ‘অনলাইনে গরু কিনে আমি খুব খুশি। কোনো রকম ঝামেলা পোহাতে হয়নি। হাটে টাকা-পয়সা নিয়ে যাওয়া, সারাদিন ঘোরা খুবই বিরক্তিকর। তাই আমি এ বছরও অনলাইনে গরু কিনব। তাদের সার্ভিস অনেক ভালো। ’


মন্তব্য