kalerkantho


দেওয়ানগঞ্জ সীমান্ত

বিএসএফের নির্যাতনে ব্যবসায়ী নিহত

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) ও জামালপুর প্রতিনিধি   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার উত্তর রহিমপুর সীমান্তে গরু ব্যবসায়ী নুরুল ইসলামের (৫০) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বিএসএফ জওয়ানরা তাঁকে ধরে নিয়ে নির্যাতনে হত্যা করেছেন বলে সন্দেহ পরিবারের সদস্যদের।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

দেওয়ানগঞ্জ থানার ওসি শাহিনুর ইসলাম বলেন, নুরুল ইসলামকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে, তাঁর শরীরে আঘাতের চিহ্ন স্পষ্ট। তবে কারা তাঁকে হত্যা করেছে, তা তদন্তের আগে বলা যাচ্ছে না।

ঘটনাস্থল ঝাউডাঙ্গা বিজিবি ক্যাম্পের কম্পানি কমান্ডার সুবেদার এরশাদ আলী জানান, লাশ উদ্ধার করা হয়েছে বাংলাদেশের সীমান্তে। তাঁকে বিএসএফ নির্যাতন করেছে কি না, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। বিএসএফের কাছে বার্তা পাঠানো হয়েছে পতাকা বৈঠকের জন্য।

স্থানীয় সূত্র জানায়, নুরুল ইসলামকে সীমান্তের ওপারে বুধবার রাতে নির্যাতন করে হত্যার পর বাংলাদেশের  ভেতরে লাশ ফেলা হয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। তাঁর শরীরে অসংখ্য ক্ষতচিহ্ন রয়েছে। নিহত নুরুল পাঁচ সন্তানের জনক।

বাড়ি কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার বকবান্দা গ্রামে। স্থানীয়ভাবে গরু ব্যবসায়ী হিসেবেই তিনি পরিচিত।

স্ত্রী নাসিমা বেগম জানান, বুধবার সন্ধ্যার দিকে সীমান্তে গরু নামানোর কাজে বের হন নুরুল ইসলাম। একই গ্রামের জাইদুল ইসলাম, মাইদুল ইসলাম, ইসরাফিল ও নুরুন্নবী তাঁকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যান। ’

সূত্র জানায়, সীমান্তের ১০৮২ নম্বর মেইন পিলারের কাছে গরু নামানোর সময় ভারতের ময়েন্দ্রগঞ্জ বিএসএফ ক্যাম্পের জওয়ানরা চ্যালেঞ্জ করেন। অন্যরা পালিয়ে গেলেও ধরা পড়েন নুরুল। পরে সকালে তাঁর লাশ পড়ে থাকতে দেখা যায় নো ম্যানস ল্যান্ড থেকে প্রায় ৫০ গজ ভেতরে বাংলাদেশ অংশে।


মন্তব্য