kalerkantho

বুধবার । ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ । ৫ মাঘ ১৪২৩। ১৯ রবিউস সানি ১৪৩৮।


ইউপি নির্বাচন নিয়ে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি

তৃণমূলেও দলতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ এপ্রিল, ২০১৬ ০০:০০



চলমান ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে অর্থহীন ও রাষ্ট্রীয় অর্থের অপচয় হিসেবে অভিহিত করেছেন বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির নেতারা। গতকাল রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দলটির এক সভায় তারা এ মন্তব্য করেন।

বক্তারা বলেন, নির্বাচনের নামে এই গণতামাশার সঙ্গে তৃণমূলে ইউনিয়ন পরিষদকে গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলার কোনো সম্পর্ক নেই। এই নির্বাচনী প্রহসনের মধ্য দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে সরকারি দলের নিরঙ্কুশ দলতন্ত্র ও কর্তৃত্ব আরো পাকাপোক্ত হচ্ছে।

নেতারা বলেন, নির্বাচনের এই ধারা অব্যাহত থাকলে তৃণমূল থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত সরকারি দল ছাড়া অন্য কোনো রাজনৈতিক দলের উল্লেখযোগ্য কোনো প্রতিনিধিত্ব থাকবে না। জাতীয় সংসদের মতো স্থানীয় সরকারগুলোতেও এক দলের রাজত্ব প্রতিষ্ঠিত হবে।

দলের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হকের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন রাজনৈতিক কমিটির সদস্য বহ্নিশিখা জামালী, আকবর খান, মুখলেছুর রহমান, আবু হাসান টিপু ও আনসার আলী দুলাল। সভায় কুমিল্লার ভিক্টোরিয়া কলেজের ছাত্রী সোহাগী জাহান তনু হত্যাকাণ্ডের বিশ্বাসযোগ্য তদন্ত, ধর্ষক ও  ঘাতকদের অনতিবিলম্বে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়েছে।

ওয়ার্কার্স পার্টির বিবৃতি : এদিকে ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা গতকাল এক বিবৃতিতে বলেছেন, দ্বিতীয় পর্যায়ের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও কেন্দ্র দখল, আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের পক্ষে ব্যালটে সিল মেরে ভোট বাক্সে ঢুকানো, ব্যাপক সন্ত্রাস, অনিয়ম ও আচরণবিধি ভঙ্গের মহোৎসব স্থানীয় সরকারব্যবস্থার তৃণমূল পর্যায়ে এই প্রতিষ্ঠানের নির্বাচনকে কলুষিত করেছে। অথচ নির্বাচন কমিশন স্বভাবসুলভ ভঙ্গিতে এসব দায় পুলিশ প্রশাসনের ওপর চাপিয়ে তাদের দায় এড়াতে চাইছে। নির্বাচনে আচরণবিধি মেনে চলতে বাধ্য করা এবং সহিংসতা রোধে নির্বাচন কমিশনের যে দৃঢ় ও শক্তিশালী ভূমিকা থাকা প্রয়োজন তা না করে তারা নির্বিকার থেকেছে, যা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক।


মন্তব্য