kalerkantho


পুলিশ অ্যাবকে আলোচনা সভা করতে দেয়নি

ফখরুল ছিলেন প্রধান অতিথি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ এপ্রিল, ২০১৬ ০০:০০



কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (কেআইবি) কর্তৃপক্ষের অনুমতি থাকলেও কেআইবি কমপ্লেক্সের সেমিনার হলে বিএনপিপন্থী কৃষিবিদদের সংগঠন অ্যাগ্রিকালচারিস্ট অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশকে (অ্যাব) গতকাল শনিবার পুলিশ আলোচনা সভা করতে দেয়নি বলে অভিযোগ করা হয়েছে। ওই আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল বিএনপির নতুন মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের। পাঁচ বছর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন শেষে মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার পর মির্জা ফখরুলের এটি ছিল প্রথম কোনো রাজনৈতিক আলোচনা সভার কর্মসূচি।

অ্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গতকাল বিকেল ৩টায় রাজধানীর ফার্মগেটে কেআইবি কমপ্লেক্সের থ্রিডি সেমিনার হলে তাদের ‘দুর্নীতি, দুঃশাসনে বিপন্ন স্বাধীনতা’ শীর্ষক আলোচনা সভা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বিকেল সাড়ে ৩টায় সংগঠনের সদস্যসচিব হাসান জাফির তুহিন অনুষ্ঠানস্থলের সামনে সাংবাদিকদের বলেন, ‘কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন কর্তৃপক্ষের অনুমতি থাকলেও তেজগাঁও পুলিশের কয়েকজন সাব ইন্সপেক্টর এসে আমাদের বলে গেছেন, এখানে অনুষ্ঠান করার কোনো অনুমতি নেই। ’ পরে পুলিশ তাঁদের বের করে দিয়ে থ্রিডি সেমিনার হলে তালা লাগিয়ে দেয় বলেও অভিযোগ তাঁর। পুলিশের এ আচরণের নিন্দা ও ক্ষোভ জানান তুহিন। ওই সময় সংগঠনটির আহ্বায়ক আনোয়ার-উন-নবী মজুমদার বাবলাসহ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

তুহিন বলেন, ‘আমরা সকাল থেকে অনুষ্ঠানের সব আয়োজন শুরু করেছিলাম। দুপুর আড়াইটায় পুলিশ এসে আমাদের সেমিনার হল থেকে বের করে দেয়। ’

এ ব্যাপারে সেখানে উপস্থিত এসআই মামুন শাহর কাছে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি কিছু জানি না। ডিউটি করতে এসেছি। কিছু জানার থাকলে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করুন। ’

‘গ্রেপ্তার বাণিজ্য এখন নিয়মে পরিণত হয়েছে’ : এদিকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করে বলেছেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দিয়ে গ্রেপ্তার বাণিজ্য এখন নিয়মে পরিণত হয়েছে। গতকাল জাতীয়তাবাদী সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংস্থা (জাসাস) ঢাকা মহানগর উত্তরের আহ্বায়ক ডা. আরিফুর রহমান মোল্লাকে আটক করার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে এক বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল এ কথা বলেন।


মন্তব্য