kalerkantho


সিলেটে দ্বিতীয় ধাপেও ‘বিদ্রোহীদের আধিপত্য’

সিলেট অফিস   

২ এপ্রিল, ২০১৬ ০০:০০



প্রথম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সিলেট সদর উপজেলার আটটি ইউনিয়নের মধ্যে চারটিতেই জয় পেয়েছিলেন ‘বিদ্রোহী প্রার্থীরা’। দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনেও ‘বিদ্রোহীদের’ জয়জয়কার।

গত বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত ১৩টি ইউনিয়নের নির্বাচনে ছয়টিতেই ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী জয়লাভ করেছেন। বিজয়ী ছয়জনের মধ্যে পাঁচজন আওয়ামী লীগের আর একজন বিএনপির।

দ্বিতীয় ধাপে কোম্পানীগঞ্জ ও গোয়াইনঘাট উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে নির্বাচন হয়েছে। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নের মধ্যে পাঁচটিতেই ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীরা জয়লাভ করেছেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের চারজন এবং বিএনপির একজন। মাত্র একটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী জয়লাভ করেছেন। আওয়ামী লীগের বিজয়ী ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীরা হলেন তেলিখাল ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান কাজী আবদুল ওদুদ আলফু মিয়া, ইছাকলস ইউনিয়নে কুটি মিয়া, দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়নে সিদ্দিকুর রহমান রোকন ও উত্তর রণিখাই ইউনিয়নে ফরিদ উদ্দিন।

এ ছাড়া পশ্চিম ইসলামপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী জামাল উদ্দিন এবং পূর্ব ইসলামপুর ইউনিয়নে বিএনপির ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী বাবুল মিয়া জয়ী হয়েছেন।

গোয়াইনঘাট উপজেলার সাতটি ইউনিয়নের মধ্যে চারটিতে আওয়ামী লীগ, দুটিতে বিএনপি এবং একটিতে আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী জয়লাভ করেছেন।

আওয়ামী লীগের বিজয়ী চারজন হলেন নন্দীরগাঁও ইউনিয়নে এস কামরুল হাসান আমিরুল, পশ্চিম জাফলং ইউনিয়নে আবদুস সালাম, আলীরগাঁও ইউনিয়নে গোলাম কিবরিয়া হেলাল ও ফতেহপুর ইউনিয়নে আমিনুর রশীদ চৌধুরী। পূর্ব জাফলং ইউনিয়নে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা লুত্ফুর রহমান লেবু। বিএনপির বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন তোয়াকুল ইউনিয়নে খালেদ আহমদ এবং রুস্তমপুর ইউনিয়নে মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন শিহাব।

উল্লেখ্য, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনী প্রচার শুরুর পর থেকেই ‘বিদ্রোহীদের’ নিয়ে বিপাকে পড়ে আওয়ামী লীগ।


মন্তব্য