kalerkantho


শ্যামনগরে মাদ্রাসা সুপারকে কুপিয়ে হত্যা

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

১ এপ্রিল, ২০১৬ ০০:০০



সাতক্ষীরার শ্যামনগরে নিজ অফিসে খুন হয়েছেন মাদ্রাসা সুপার মাওলানা বাবুল আকতার (৪৫)। তিনি রামজীবনপুর মহিলা দাখিল মাদ্রাসায় কর্মরত ছিলেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে অফিস কক্ষেই তাঁকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করা হয়। মাদ্রাসার নৈশপ্রহরী আবুল কালাম আর্থিক লেনদেনের বিরোধে এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

শ্যামনগর থানার সহকারী উপপরিদর্শক মো. আসাদুজ্জামান জানান, মাদ্রাসার সুপার বাবুল আকতার দুপুর আড়াইটায় যখন বাড়ি যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন, তখনই ঘটেছে খুনের ঘটনা। নৈশপ্রহরী আবুল কালাম তাঁর কক্ষে ঢুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। আক্রান্ত সুপারের চিত্কারে অন্যরা এগিয়ে এলে কালাম রক্তাক্ত দা হাতে দৌড়ে পালিয়ে যায়। মারাত্মক জখম অবস্থায় সুপারকে উদ্ধার করে শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

শ্যামনগর থানার ওসি এনামুল হক জানান, নৈশপ্রহরী আবুল কালামকে দপ্তরি পদে চাকরি দিতে চেয়েছিলেন মাদ্রাসা সুপার। এ জন্য তিনি চার লাখ টাকা নেন। কালাম চাকরি পাওয়ার আশায় সহায়-সম্বল বিক্রি করে টাকার জোগান দেয়।

কিন্তু মাদ্রাসা সুপার দপ্তরি পদে অন্যকে নিয়োগ দেন। এতে ক্ষুব্ধ কালাম তাঁকে কুপিয়ে হত্যা করেছে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। নিহত বাবুল আকতারের বাড়ি নুরনগর ইউনিয়নের ছেন্নাতপুর গ্রামে। মাদ্রাসায় চাকরির কারণে গত পাঁচ বছর তিনি স্ত্রী ও দুই সন্তান নিয়ে রামজীবনপুরে বসবাস করছিলেন। নৈশপ্রহরী কালাম রামজীবনপুর গ্রামেরই বাসিন্দা।


মন্তব্য