kalerkantho

শনিবার । ২১ জানুয়ারি ২০১৭ । ৮ মাঘ ১৪২৩। ২২ রবিউস সানি ১৪৩৮।


জনতা ব্যাংকের টাকা আত্মসাৎ

প্রধান আসামি টিপু খুলনায় গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ও চট্টগ্রাম   

৩১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



জনতা ব্যাংকের আড়াই শ কোটি টাকা আত্মসাতের ঘটনায় করা মামলার প্রধান আসামি ব্যবসায়ী টিপু সুলতানকে খুলনা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। দুর্নীতি দমন কমিশনের ঢাকার একটি বিশেষ দল গতকাল বুধবার বিকেলে খুলনার দৌলতপুর থেকে টিপুকে গ্রেপ্তার করে। পরে আদালতের আদেশে তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়।

টিপু সুলতান মেসার্স ঢাকা ট্রেডিং হাউস নামের একটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী। এর কার্যালয় রাজধানীর বিজয়নগরে। দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য কালের কণ্ঠকে বলেছেন, আইনি প্রক্রিয়া শেষ করে টিপুকে ঢাকায় আনা হবে।

গত ১৮ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর মতিঝিল থানায় টিপু সুলতানসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপপরিচালক মো. সামছুল আলম মামলাটি করেন। এতে আসামি করা হয় জনতা ব্যাংকের সাবেক মহাব্যবস্থাপক ও বর্তমানে শাহজালাল ব্যাংকের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মনজেরুল ইসলাম, জনতা ব্যাংকের সাবেক সহকারী মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) শামীম আহমেদ খান, ব্যাংকটির লোকাল অফিসের জ্যেষ্ঠ নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মশিউর রহমান এবং একই অফিসের সাবেক ব্যবস্থাপক এ এস এম জহিরুলকে। ঘটনার সময় মনজেরুল ইসলাম জনতা ব্যাংকের উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) ছিলেন। পরে মহাব্যবস্থাপক হিসেবে অবসরে যান। এরপর যোগ দেন শাহজালাল ব্যাংকে। মামলায় অভিযোগ আনা হয়েছে যে আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ঢাকা ট্রেডিং হাউসের নামে জনতা ব্যাংকের মতিঝিল লোকাল অফিসে ঋণপত্র (এলসি) খুলে পণ্য আমদানি না করে টাকা স্থানান্তর করে ২৫০ কোটি ৯৬ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন।

দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য কালের কণ্ঠকে বলেন, এই মামলার প্রধান আসামি টিপু সুলতান দেশ থেকে পালানোর চেষ্টা করছিলেন। এই খবর পেয়ে দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে দুদকের পরিচালক জায়েদ হোসেন খানের নেতৃত্বে একটি বিশেষ দল খুলনায় গিয়ে পুলিশ ও স্থানীয় জনগণের সহযোগিতায় তাঁকে গ্রেপ্তার করে।


মন্তব্য