kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৭ জানুয়ারি ২০১৭ । ৪ মাঘ ১৪২৩। ১৮ রবিউস সানি ১৪৩৮।


এমাজউদ্দীন বললেন

জাতীয় মর্যাদার প্রশ্নে দুই মন্ত্রীর পদত্যাগ করা উচিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩০ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হককে আত্মসম্মান ও আত্মমর্যাদাবোধ থেকে অবিলম্বে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড. এমাজউদ্দীন আহমদ। তিনি বলেছেন, অন্য কারো দিকে না তাকিয়ে তাঁরা নিজেদের বিবেকের বাণী শুনলে ভালো হয়। কারণ এর সঙ্গে জাতীয় মর্যাদার প্রশ্ন জড়িত।

গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরাম আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. এমাজউদ্দীন এসব কথা বলেন। মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস এবং বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরামের দশম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এ সভার আয়োজন করা হয়।

ড. এমাজউদ্দীন আহমদ বলেন, ‘২০০৪ সালে একজন আইজিপিকে (পুলিশপ্রধান) দুই হাজার টাকা জরিমানা করেন আদালত। তিনি সঙ্গে সঙ্গেই চাকরি ছেড়ে দেন। এ ধরনের ঘটনা আত্মমর্যাদা ও আত্মসম্মানের ব্যাপার। আমাদের মন্ত্রীদের আত্মসম্মান ও আত্মমর্যাদাবোধ থাকবে না—এটা আমি বিশ্বাস করি না। তাঁদের অবশ্যই তা আছে। ’

সোহাগী জাহান তনু হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি করে সাবেক এই উপাচার্য বলেন, তনু হত্যার সঠিক বিচারের লক্ষ্যে রাষ্ট্রের ক্ষমতার সবটুকু ব্যবহার করা দরকার। অথচ এখন পর্যন্ত অপরাধীদের ধরাই হলো না।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মদ সাইদুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির (জাগপা) সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, হেলেন জেরিন খান, স্বাধীনতা ফোরামের সভাপতি আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ প্রমুখ।

‘তনু হত্যার দায় রাষ্ট্র এড়াতে পারে না’ : এদিকে তনু হত্যার প্রতিবাদে গতকাল সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে নাগরিক মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার সমিতি আয়োজিত এই কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু।

মানববন্ধনে দুদু বলেন, কুমিল্লার ভিক্টোরিয়া কলেজের মেধাবী ছাত্রী নাট্যকর্মী সোহাগী জাহান তনু হত্যার বিচার রাষ্ট্রকেই করতে হবে। কোনো কারণে বিচার না করলে এর দায় রাষ্ট্র এড়াতে পারবে না। সরকার হয় বিচার করবে, নয় তো দায় নেবে। তনুকে নিয়ে সারা দেশে যে আন্দোলন শুরু হয়েছে তা কোনো রাজনৈতিক আন্দোলন নয়, বরং জনগণের দীর্ঘদিনের নাভিশ্বাসের যন্ত্রণার প্রতিফলন।

বিএনপির এই নেতা আরো বলেন, দেশে গণতন্ত্র থাকলে আজ এভাবে খুন-গুম-ধর্ষণ হতো না। দেশের হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট হয়ে যাচ্ছে। গভর্নর দায় স্বীকার করে পদত্যাগ করছেন। অথচ অর্থমন্ত্রী কিছু জানেন না। অবিলম্বে এই অর্থমন্ত্রীর পদত্যাগ করা উচিত।

আয়োজক সংগঠনের মহাসচিব মঞ্জুর হোসেন ঈসার সভাপতিত্বে এই মানববন্ধনে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য রফিক সিকদার, কল্যাণ পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান সাহেদুর রহমান তামান্না, এনডিপির প্রচার সম্পাদক রাজু আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য