kalerkantho


কর্মক্ষেত্রে নিষ্ক্রিয়তার আলামত

২৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



কর্মক্ষেত্রে নিষ্ক্রিয়তার আলামত

কর্মক্ষেত্রে আপনার গুরুত্ব নিশ্চয় ধ্রুবক হয়ে থাকে না। কর্মী হিসেবে আপনার গুরুত্ব কখনো বাড়ে, আবার কখনো কমে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মোটামুটি আটটি বিষয় খেয়াল করলেই বোঝা যাবে কর্মক্ষেত্রে আপনার গুরুত্বের মাত্রা কতটুকু। কিংবা বেরিয়ে আসবে আপনি সক্রিয়, নাকি নিষ্ক্রিয়—

১. মিটিং ও সিদ্ধান্ত উপেক্ষিত : কর্মক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ মিটিং কিংবা সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় আপনাকে যদি গুরুত্ব দেওয়া না হয়, তাহলে তা উদ্বেগজনক। এ ক্ষেত্রে ধরে নিতে পারেন, আপনার অভিজ্ঞতা কিংবা যোগ্যতার মূল্যায়ন হচ্ছে না। কিংবা তা মূল্যায়নের যোগ্য নয়।

২. কর্মক্ষমতা ও উৎপাদনশীলতা হ্রাস : আপনার যদি কর্মক্ষমতা ও উৎপাদনশীলতা দিন দিন কমে যায় তাহলে বুঝতে হবে আপনার কাজের তাগিদ কমে গেছে। যার কারণ হয়তো লুকিয়ে আছে কর্মক্ষেত্রেই।

৩. ঘুম থেকে উঠতে ভয় : কর্মক্ষেত্রে বিতৃষ্ণা এলে সকালে ঘুম থেকে উঠতেও অস্বস্তি লাগতে পারে। এমন পরিস্থিতি চলতে থাকলে ধরে নিতে হবে, আপনি কর্মক্ষেত্রে বিরক্তিকর পরিস্থিতির মধ্যে পড়েছেন।

৪. প্রযুক্তির প্রসারে কর্মহীন : প্রযুক্তিগত উন্নয়নের কারণে এখন কর্মক্ষেত্রে অনেক পদেরই প্রয়োজনীয়তা ফুরিয়ে গেছে।

আপনার যদি মনে হয়, প্রযুক্তির কারণে আপনার দক্ষতার প্রয়োজনীয়তা নেই, তাহলে তাও একটা অশনি সংকেত হতে পারে।

৫. সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আসক্তি : কর্মক্ষেত্রে কাজের তুলনায় ইন্টারনেটে বেশি সময় ব্যয় হলে বুঝতে হবে আপনি স্থবির হয়ে পড়েছেন। আপনার কাজ থমকে গেছে, নষ্ট হয়ে গেছে গতিশীলতাও।

৬. ব্যক্তিগত জীবনে প্রভাব : কর্মক্ষেত্রের প্রভাব ব্যক্তিগত জীবনে পড়া শুরু করলে তা নানা ধরনের সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। এ ধরনের পরিস্থিতি তৈরি হলে বিষয়টি ঠাণ্ডা মাথায় চিন্তা করা উচিত।

৭. প্রশিক্ষণ ও উন্নতি বন্ধ : কর্মক্ষেত্রে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন বিষয় শিখে নিজের ও প্রতিষ্ঠানের উন্নতিতে সচেষ্ট থাকতে হয়। কিন্তু আপনার মধ্যে যদি এ প্রক্রিয়া বন্ধ হয়ে যায়, তাহলে বিষয়টি মোটেও ভালো নয়।

৮. বস ও সহকর্মীদের নিয়ে বিরক্তি : কর্মক্ষেত্রে সবার সঙ্গে মিলেমিশে কাজ করাই কাম্য। এ ক্ষেত্রে বস ও সহকর্মীদের বিষয়ে আপনার মধ্যে বিরক্তি কাজ করলে তা মোটেও ইতিবাচকভাবে দেখার সুযোগ নেই।

ফোর্বস সাময়িকী অবলম্বনে

ওমর শরীফ পল্লব


মন্তব্য