kalerkantho


চুলে প্রাণ ফেরাতে

২৮ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



চুলে প্রাণ ফেরাতে

১. কম ধোয়া : অতিরিক্ত ধোয়ার ফলে চুলের যথেষ্ট ক্ষতি হয়। আপনি যদি খুব একটা ঘরের বাইরে না যান, তাহলে প্রতিদিন শ্যাম্পু করার দরকার নেই।

অতিরিক্ত শ্যাম্পু ব্যবহারে চুল শুষ্ক হয়ে যায়। চুলের নরম ও মসৃণ ভাব থাকে না।

২. সঠিক কন্ডিশনার : কোন কন্ডিশনার ব্যবহার করছেন, তা গুরুত্বপূর্ণ। চুল ও মাথার ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক হলে কন্ডিশনার ব্যবহারেও সতর্ক হতে হবে। এ ক্ষেত্রে ‘ময়েশ্চার-স্পেসিফিক অপশন’ ব্যবহার করুন। এটি প্রতিবার ব্যবহারে চুল প্রাণ ফিরে পায়। এ ছাড়া সপ্তাহে একবার করে ‘ডিপ কন্ডিশনিং ট্রিটমেন্ট’ ব্যবহার করতে পারেন।

৩. ভালোভাবে শুকানো : ধোয়ার পর চুল ভালোভাবে শুকানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এমনকি চুলে যেকোনো সজ্জার আগেও ভালোভাবে শুকিয়ে নেওয়া উচিত।

কারণ চুল ভেজা অবস্থায় সবচেয়ে দুর্বল থাকে। এ ক্ষেত্রে হেয়ার ড্রায়ার নয়, বরং তোয়ালে দিয়ে চুল শুকাতে হবে। মনে রাখতে হবে, অতিরিক্ত ঘষাঘষিও চুলের বিপদ আনতে পারে।

৪. যেকোনো স্টাইল মানা : চুলের জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক হলো নিম্নমানের ফ্র্যাগরেন্স ও অ্যালকোহলযুক্ত প্রসাধনী। এসব প্রসাধনী চুলের ক্ষতি করে। তাই খুব প্রয়োজন ছাড়া চুলের বাড়তি স্টাইল বাদ দিন। সীমিত আকারে ব্যবহার করুন মানসম্মত প্রসাধনী।

৫. চুলের বিশ্রাম : বাড়তি প্রসাধনী কিংবা রং করালে চুলে প্রচণ্ড চাপ পড়ে। তাই প্রসাধনী কিংবা রং করার পর চুল কিছুদিন মুক্ত রাখতে হবে। এতে চুল আগের স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে যায়।

৬. খাবার : চুল সুস্থ রাখতে খাবারদাবারে সতর্ক থাকা জরুরি। মনে রাখতে হবে, সব খাবারই চুলের ওপর প্রভাব ফেলে। সেই প্রভাব ইতিবাচক কিংবা নেতিবাচক হতে পারে। প্রাকৃতিকভাবে নরম ও মসৃণ চুলের জন্য ‘ওমেগা থ্রি’ যুক্ত খাবার খেতে পারেন। ডিম, সবজি ও ফলমূল চুলের জন্য উপকারী।

ফক্স নিউজ অবলম্বনে

ওমর শরীফ পল্লব


মন্তব্য