kalerkantho


লুই কানের স্থাপত্য ঘিরে গণতন্ত্রের বিশ্বমেলা

আবুল কাশেম

২৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



বিশ্বের ১৬৭টি দেশের পার্লামেন্ট সদস্যদের নিয়ে বাংলাদেশে হতে যাচ্ছে ইন্টার পার্লামেন্টারিয়ান ইউনিয়নের (আইপিইউ) সম্মেলন। আগামী বছরের মার্চে রাজধানী ঢাকায় জাতীয় সংসদ ঘিরে বসবে সংগঠনটির ১৩৬তম অধিবেশন। এই মহা আয়োজনে যোগ দেবেন ১৬৭টি দেশের প্রায় এক হাজার ৬০০ প্রতিনিধি। তাঁদের মধ্যে থাকছেন প্রায় ৭০০ জন এমপি এবং ৫০ জন স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকার। এ ছাড়া থাকছেন জাতিসংঘ ও এর বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের ৬৫ জন আমন্ত্রিত অতিথি, ৪০ জন পর্যবেক্ষক এবং ১০টি সহযোগী সদস্য দেশের ৫০ থেকে ৬০ জন প্রতিনিধি।

পাঁচ দিনের এই সম্মেলন ঘিরে ১৫ দিনের মহা আয়োজনের প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার। বিপুলসংখ্যক ভিআইপি অতিথির প্রটোকল সুবিধা, ভিসা, নিরাপত্তা ও পরিবহনব্যবস্থা, মিডিয়া কাভারেজ ও ইন্টারনেট ব্যবস্থাসহ সার্বিক আয়োজনে এখন থেকেই মনোযোগ দেওয়া হচ্ছে।

আগামী ১৯ থেকে ২৩ মার্চ জাম্বিয়ার লুসাকায় আইপিইউর সম্মেলন হতে যাচ্ছে।

আইপিইউ অধিবেশন সুষ্ঠুভাবে আয়োজনের লক্ষ্যে সম্প্রতি সংস্থাটির দুজন প্রতিনিধি ঢাকা সফর করেন।

১৩৬তম অধিবেশনে অংশগ্রহণ করবেন এমন এক হাজার ৩০০ প্রতিনিধির জন্য হোটেল কক্ষ বরাদ্দ রাখতে বাংলাদেশকে আগাম পরামর্শ দেওয়া হয়েছে আইপিইউর পক্ষ থেকে। তবে আবাসন ব্যয় তারা নিজেরা বহন করবে।

আর মূল অধিবেশন হোটেলে আইপিইউ প্রেসিডেন্ট ও সেক্রেটারি জেনারেলের জন্য জুনিয়র স্যুট বরাদ্দ রাখতে হবে, যার ব্যয় বাংলাদেশকে বহন করতে হবে। আইপিইউর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জন্য চালকসহ গাড়ির ব্যবস্থা করতে হবে। আইপিইউ ইন্টারন্যাশনাল কার্যালয়ের সর্বোচ্চ ১১০ জন কর্মকর্তার হোটেলের ব্যয় ছাড়াও প্রত্যেকের দৈনিক ভাতার অর্ধেক বাংলাদেশ বহন করবে।

আইপিইউ সম্মেলনের রেওয়াজ অনুযায়ী, যে দেশে অধিবেশন হয় সে দেশের জাতীয় সংসদের স্পিকার অতিথিদের আমন্ত্রণ জানান। স্পিকারের স্বাক্ষরিত আমন্ত্রণপত্র অন্তত চার মাস আগে প্রয়োজনীয় তথ্যসহ প্রতিনিধিদের কাছে পাঠাতে হবে। আইপিইউর দাপ্তরিক লিখিত ভাষা হবে ইংরেজি ও ফরাসি। তবে মৌখিক ভাষা হিসেবে আরবি, ইংরেজি, ফরাসি, স্প্যানিশ ব্যবহূত হবে। চীন, জাপান, পর্তুগিজ ও রুশভাষী প্রতিনিধিদের জন্য বিনা মূল্যে অতিরিক্ত বুথ স্থাপন করতে হবে। এর ব্যয়ও বাংলাদেশ বহন করবে।


মন্তব্য